'চলচ্চিত্র বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্যের সম্পর্ক তৈরি'


Published: 2018-01-08 18:03:52 BdST, Updated: 2018-06-23 06:48:25 BdST

 


লাইভ প্রতিবেদক: চলচ্চিত্র বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্যের সম্পর্ক তৈরি করে। বিশ্ব মানবতাকে একই বন্ধনে আবদ্ধ করার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রাখে। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তরুণ প্রজনম্মকে সৃজনশীল ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে আগ্রহী করে। এভাবে সমাজ সভ্যতাকে আগলে রাখে। দুই দিনব্যাপী চিটাগং শর্টফিল্ম ফেস্টিভ্যালের চট্টগ্রাম পর্বের আয়োজনের সমাপনী দিনে অতিথিবৃন্দ এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

মনের সংকীর্ণতা দূর করতে এবং মানব সভ্যতাকে বাঁচিয়ে রাখতে চলচ্চিত্র সুদূর প্রসারী ভূমিকা রয়েছে। মানুষের জীবনের কোনো ঘটনাই অর্থহীন নয়। চলচ্চিত্র সেই অর্থটাই খুঁজে বের করে।

চলচ্চিত্রকে যদি উপন্যাসের সাথে তুলনা করা যায়, তবে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রকে আমরা বলতে পারি ছোট গল্প। অতিথিবৃন্দ দেশের চলচ্চিত্র আন্দোলনে চিটাগং শর্টের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, চিটাগং শর্ট তাঁদের এই উদ্যোগের মাধ্যমে তরুণ সমাজকে সচেতন করতে পারবে।

উৎসবের শেষদিনে ছিল চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণ। উৎসব পরিচালক শারাফাত আলী শওকতের পরিচালনায় এবং চিটাগং শর্ট এর প্রতিষ্ঠাতা ইসমাইল চৌধুরীর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চিটাগং শর্ট এর জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান জ্যাঁ নেসার ওসমান, বাংলাদেশ টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাকালীন কর্মকর্তা প্রবীণ মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বেলাল বেগ, মাস্টার ক্লাসের পরিচালক হায়দার রিজভী, চিত্রনাট্যকার শাহজাহান শামীম, চিত্রগ্রাহক আহমেদ হিমু, চলচ্চিত্রকার হাসান আল বান্না, বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের স্বত্বাধিকারী মঞ্জুরুল হক।

এম এ মালেক খারাপ সিনেমাকে ‘ছি! নামা’ উল্লেখ করে বলেন, তরুণদের কাছে আমরা ‘ছি! নামা’ নয় ‘সিনেমা’ চাই। তিনি বলেন, জাতীয় জীবনের সমস্যা কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরার জন্যে বর্তমানে চলচ্চিত্রের চেয়ে বড় মাধ্যম আর কিছু হতে পারে না। চলচ্চিত্রকারদের উচিত, এমন চলচ্চিত্র নির্মাণ করা যার মাধ্যমে সমস্যাগুলো সমাধান করার রাস্তা তৈরি হয়।

তিনি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে বলেন, সময়সীমা বড়জোর ২০ মিনিট। এত অল্প সময়ে জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো তুলে ধরতে এ মাধ্যমটির জুড়ি নেই। এককথায় জীবনের খণ্ডিতাংশ তুলে ধরে শর্টফিল্ম।

সিনেমা আমার কাছে মনে হয় উপন্যাস, আর শর্টফিল্ম হলো ছোট গল্প। তিনি চিটাগং শর্ট এর এ আয়োজনের নেপথ্যের কারণ সম্পর্কে বলেন, তারা চট্টগ্রামকে ব্র্যান্ডিং করতে চাইছে। অবশ্যই ভালো উদ্যোগ।

চট্টগ্রামকে ব্র্যান্ডিং যদি চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় করা হয়, তবে তা আরো বেশি চিত্তাকর্ষক হবে। চট্টগ্রামকে ব্র্যান্ডিং করতে গিয়ে যেন চট্টগ্রামের গন্ধটা না হারায়, সে বিষয়টি লক্ষ্য রাখার পরামর্শ দেন তিনি।

চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে এনামুল হক খান পরিচালিত এবং ফুয়াদ নাসের প্রযোজিত শর্টফিল্ম ‘বাঁকা হাওয়া’। শ্রেষ্ঠ বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে ফ্যাব্রিস বারাখ পরিচালিত এবং ফেব্রিস প্রিয়েল ক্লিস প্রযোজিত ‘এ হোল ওয়ার্ল্ড ফর এ লিটল ওয়ার্ল্ড’।

এছাড়াও ‘কন্টেমপ্লেশন’ সিনেমার জন্যে নাহিদা পারভিন শ্রেষ্ঠ পরিচালক, ‘কাম ফ্রম বিদেশ’ সিনেমার প্রধান চরিত্র ফাহিম আরিয়ান শ্রেষ্ঠ অভিনেতা এবং উনি প্রশু মারমা ‘লেটার টু গড’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার পান।

শ্রেষ্ঠ পরিচালকের পুরস্কার বিজয়ী নাহিদা পারভিন বিজয়ের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে তাঁর স্বামীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, আমার স্বামী আমার বেস্ট ফ্রেন্ড। তার ইচ্ছাতেই আমার এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া।

তিনি বলেন, আমার দ্বিতীয় চলচ্চিত্রটি নির্মাণের পর এডিট করতে গেলে এক ব্যক্তি বলেছিলেন, ‘মাইয়া মাইনষের লগে কাম করশুম না।’ আমার স্বামী তখন এডিটিংটা শিখে চলচ্চিত্রটি এডিট করেছিলেন। আজ এ পুরস্কার সেই মানুষটির প্রতি উপযুক্ত জবাব, যিনি ‘মাইয়া মানুস’ বলে আমার ছবি এডিট করতে চান নি। এ পুরস্কার আমাকে ‘মাইয়া মানুষ’ থেকে ‘মানুষ’ হিসেবে পরিচিতি দিল।

দৈনিক আজাদী ও বিজ্ঞাপনী সংস্থা নকশার সহযোগিতায় চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের দুই দিনব্যাপী চট্টগ্রাম পর্বের উৎসবে শেষ দিনে নগরীর থিয়েটার ইন্সটিটিউটে শুরুতেই ছিল প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রশিক্ষক হায়দার রিজভীর মাস্টার ক্লাসের দ্বিতীয় অংশ।

মাস্টার ক্লাসের পরপরই শুরু হয় চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। বেলা দেড়টা এবং বিকেল সাড়ে চারটা থেকে শুরু হওয়া দুটি শোতে হলভর্তি দর্শক উপভোগ করেন চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের নির্বাচিত ২০টি চলচ্চিত্র।

প্রসঙ্গত: রূপালী পর্দাকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে, তরশুণ প্রজন্মকে চলচ্চিত্র শিল্পের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে এবং চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশকে বিশ্ব মানচিত্রে মর্যাদার আসনে টিকিয়ে রাখতে গত তিন বছর ধরে চিটাগং শর্ট চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করে চলেছে।

 

ঢাকা, ৮ জানুয়ারী (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।