শিক্ষকের হাত জোড়া লাগানোর চেষ্টা চলছে


Published: 2020-03-10 21:57:44 BdST, Updated: 2020-03-29 02:18:18 BdST

লাইভ ডেস্কঃ গোপালগঞ্জে দুর্ঘটনায় রাজধানীর কাকরাইল উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক সৈয়দা ফাহিমা বেগমের বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতটি জোড়া লাগানোর চেষ্টা কার হচ্ছে। তিনি রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষিকা। ঘটনার পরপরই গোপালগঞ্জ থেকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হয়।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ফাহিমা বেগমকে আনার পরই চিকিৎসকেরা অস্ত্রোপচারকক্ষে নিয়ে যান।

হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, দুর্ঘটনায় শিক্ষক ফাহিমা বেগমের বাম হাত কনুইয়ের নিচ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। হাত ছাড়াও মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত রয়েছে বলে জানাযায়। হাসপাতালের সিনিয়র চিকিৎসকদের নিয়ে ওই শিক্ষকের অস্ত্রোপচার চলছে। এরপর তার অন্যন্য ইনজুরির জন্য চিকিৎসা দেয়া হবে।

তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। শিক্ষক ফাহিমা বেগমের স্বামী পুলিশের সিনিয়র এএসপি (এসবি) সৈয়দ শফিকুল ইসলাম। তিনি দুই সন্তানের জননী।

কলেজ শাখার শিক্ষক ও শিক্ষার্থী নিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে শিক্ষাসফরে যাচ্ছিলেন। পথে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া এলাকায় তাদের বাসাটি নিয়ন্ত্রণ হাড়ালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ফাহিমার বাম হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ও অন্তত ১৫ শিক্ষার্থী আহত হন। আহতদের গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ঢাকা, ১০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//টিআর

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।