আন্দোলনে পলিটেকনিক শিক্ষকরা, ক্লাস করতে চায় শিক্ষার্থীরা


Published: 2020-02-12 17:28:45 BdST, Updated: 2020-02-26 01:13:43 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ দ্বিতীয় শিফটের পারিশ্রমিক কমানোর প্রতিবাদে ও বেতন জটিলতা নিরসনের দাবি নিয়ে আন্দোলনে করছেন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ও টেকনিক্যাল স্কুল অ্যন্ড কলেজের শিক্ষকগণ।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতি, পলিটেকনিক শিক্ষক পরিষদ ও কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর ও অধিদপ্তরাধীন কর্মচারি সমিতির ব্যানারে দেশের ৪৯টি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ও ৬৪টি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যন্ড কলেজে কর্মবিরতী পালন করছেন তারা। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে প্রতিবাদ সমাবেশ পালন করেছেন শিক্ষকরা।

এদিকে ক্লাস-পরীক্ষা ও আবাসিক হোস্টেল খোলার দাবিতে আন্দোলন করছে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা। বুধবার সকালে শিক্ষার্থীরা ইনস্টিটিউটটির প্রশাসন ভবনের সামনে বিক্ষোভ করেন।

এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের দ্বিতীয় শিফট নিয়ে শিক্ষকরা আন্দোলন করছেন। এতে করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। ব্যহত হচ্ছে শিক্ষা। এ নিয়ে নিয়মিত লেখা-পড়া থেকে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছেন তারা। শিক্ষার্থীদের দাবি তারা নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চান। এছাড়াও দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ছাত্রদের আবাসিক হোস্টেলগুলো খুলে দেওয়ার দাবিও জানান তারা। হোস্টেগুলো খুলে দিলে দরিদ্র শিক্ষার্থীরা অল্প খরচেই থাকার সুযোগ পাবে।

অপরদিকে, কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে দ্বিতীয় শিফটের সকল ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। অতিরিক্ত শিফটের ন্যায্য সুবিধা না পাওয়ার কারণে তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার অংশ হিসেবে চলছে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষকদের কর্মবিরতি। সেই সাথে নিয়মিত ক্লাসের দাবিতে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষকরা বলেন, কারিগরি শিক্ষায় বিদ্যমান দ্বিতীয় শিফটের জন্য বেতনের ৫০ শতাংশ প্রদান করা হলেও বর্তমানে তা কমিয়ে ৩০ শতাংশ করা হয়েছে। গত ১৯ মাস ধরে ভাতা সংক্রান্ত জটিলতা নিরসন না হওয়ার কারণে তারা তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ কারণে নতুন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে শিক্ষকরা আরও জানান, এই দাবিতে কয়েক দফায় আন্দোলন করেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। আন্দোলনের প্রেক্ষিতে সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস প্রদান করা হলেও তার করা হয়নি বাস্তবায়ন। এ কারণে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে নতুন সেমিস্টারের নতুন ক্লাস থেকে ২য় শিফটের সকল কার্যক্রম থেকে বিরত রয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ জানান, দ্বিতীয় শিফটের বেতন ভাতার দাবিতে শিক্ষাকরা আন্দোলন করছে। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা ক্লাস, পরীক্ষা ও হোস্টেল খুলে দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। শিক্ষকরা প্রায় ১৮ থেকে ২০ মাসের বেতন ভাতা পাচ্ছেন না। তাদের পাওনা টাকাগুলো ফিরে পাওয়ার জন্য শিক্ষকরা দাবি জানান।

ঢাকা, ১২ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।