ছাত্রীকে ধর্ষণ করে ‘বয়ফ্রেন্ডে’র লালসার বিচার করলেন মেয়রপুত্র!


Published: 2019-06-30 17:31:39 BdST, Updated: 2019-07-22 04:02:36 BdST

শরীয়তপুর লাইভ: জাজিরা পৌরসভার মেয়রের ছেলের বিরুদ্ধে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ছাত্রী ধর্ষক বয়ফ্রেন্ডের হাতেও ধর্ষণ হয়েছেন। বয়ফ্রেন্ডের লালসার বিচার চাইতে গিয়ে মেয়রপুত্রের হাতে তাকে আরেকবার ধর্ষণ হতে হয়েছে। এঘটনা নিয়ে শরীয়তপুরের জাজিরায় তোলপাড় চলছে। এঘটনায় জড়িত মেয়রপুত্র মাসুদকে আটক করেছে জাজিরা থানা পুলিশ।

ওই ছাত্রীর বোন জানান, শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার কলেজছাত্রীর সঙ্গে মডার্ন ক্লিনিকের স্টাফ শরীফের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শরীফ তাকে ডেটিংয়ে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখায়। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। কিছুদিন পর শরীফ সরদার তাকে বিয়ে না করে অন্যত্র বিয়ে করে। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার শালিস হয়।

এদিকে বিষয়টি সুরাহার কথা বলে জাজিরা পৌরসভার মেয়র মোঃ ইউনুছ বেপারীর ছেলে মাসুদ বেপারী ওই ছাত্রীকে তার বাড়িতে ডেকে নেয়। সে সময় মাসুদের স্ত্রী বাড়ি ছিলেন না। শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় দিকে ওই কলেজ ছাত্রী মাসুদের বাসায় যায়। ফাঁকা বাড়িতে মাসুদ বিচারপ্রার্থী কলেজ ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই ঘটনায় শনিবার রাতে জাজিরা থানা পুলিশ মেয়রের ছেলে মাসুদ বেপারীকে নিজ বাসা থেকে আটক করে।

এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর মা বলেন, আমার মেয়েকে শরীফের সঙ্গে বিয়ের ফয়সালা করার কথা বলে মাসুদ বেপারী তার বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করেছে। আমার মেয়ে অসুস্থ্য। আমি এর বিচার চাই।

অভিযুক্ত মাসুদ বেপারী বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়েছে। কলেজ ছাত্রী আমার আত্বীয় সে আমার কাছে তার মাকে নিয়ে আসছিলেন বিচারের জন্য। সেখানে কোন ঘটনা হয়নি।

জাজিরা পৌর মেয়র ইউনুছ বেপারী বলেন, আমার প্রতিপক্ষের লোকেরা ষড়যন্ত্র করে আমার ছেলেকে ফাঁসানোর জন্য মিথ্যা ঘটনা রটনা করা হয়েছে।

জাজিরা থানার ওসি মোঃ বেলায়েত হোসেন বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার গভীর রাতে মেয়রের ছেলেকে আটক করা হয়।

ঢাকা, ৩০ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।