ছাত্রীকে বাংলোতে আটকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ দুই এসএসআইয়ের!


Published: 2019-02-11 10:41:18 BdST, Updated: 2019-02-22 07:06:17 BdST

মানিকগঞ্জ লাইভ : এবার পুলিশের দুই এসআইয়ের লালসার শিকার হয়েছেন কলেজ ছাত্রী। পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে ডাকবাংলোতে ডেকে নিয়ে ওই ছাত্রীকে দুই রাত ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছেন দুই এসআই। এসময় ওই ছাত্রীকে ইয়াবা সেবন করানো হয়। তার খালাকে পাশের কক্ষে আটকে রাখা হয়। এঘটনায় মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সেকেন্দার ও মাজহারুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত করার কথা জানিয়েছেন মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম। রোববার সকালে ওই তরুণী মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগপত্র ও ভুক্তভোগী ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্পর্কে ওই তরুণীর এক খালা সাটুরিয়া থানার এসআই সেকেন্দার হোসেনের কাছে জমি বিক্রির তিন লাখ টাকা পাওনা ছিলেন। পাওনা টাকা নিতে সাভারের নবীনগর থেকে গত বুধবার বিকেল ৫টার দিকে খালার সঙ্গে ওই ছাত্রী সাটুরিয়া থানায় যায়। সেখানে এসআই সেকেন্দারের সঙ্গে তাদের দেখা হয়। পরে সেকেন্দার তাদের দুজনকে সাটুরিয়া ডাকবাংলোতে নিয়ে যান। কিছুক্ষণ পরে সেখানে উপস্থিত হন সাটুরিয়া থানার এসআই মাজহারুল ইসলাম। পরে ছাত্রী ও তার খালাকে আলাদা কক্ষে আটকে রাখে ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তা। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে অস্ত্রের মুখে ইয়াবা ট্যাবলেট সেবনে বাধ্য করা হয়। পরে দুই রাত আটকে রেখে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে দুই এসআই। দুই দিন পর গত শুক্রবার সকালে খালাসহ ওই ছাত্রীকে ডাকবাংলো থেকে মুক্তি দেওয়া হয়।

এদিকে রোববার ওই ছাত্রী মর্মস্পর্শী এ ঘটনার বর্ণনা দিয়ে মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার খোঁজখবর নিয়ে অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করার নির্দেশ দেন।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম দুই কর্মকর্তাকে থানা থেকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ঢাকা, ১১ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।