ওরা আর কখনও এভাবে সেলফি তুলবে না!


Published: 2019-02-11 00:18:57 BdST, Updated: 2019-08-20 18:38:07 BdST

গাজীপুর লাইভ : তিন বন্ধু আব্দুল্লাহ আল মাফুজ ওরফে সাকিব, জাকিরুল ইসলাম জনি ও রাশেদুল ইসলাম রাজা। এদের একজন অনার্স প্রথম বর্ষের। বাকি দুইজন এইচএসসি পরীক্ষার্থী। ঘোরাঘুরি পছন্দ তাদের। পড়াশোনার ফাঁকে মাঝে মাঝেই তাদের লং ড্রাইভে যাওয়া হতো। একসঙ্গে ঘুরে বেড়াতেন, সেলফি তুলতেন। তাদের সেই দিনগুলি এখন কেবলই স্মৃতি। এই তিন বন্ধু আর কখনও একসঙ্গে সেলফি তুলবে না। ঘুরে বেড়াবে না। বাবা-মায়ের কাছে এটা ওটা নিয়ে বায়না ধরবে না। একটি দুর্ঘটনা তাদের সবকিছু থামিয়ে দিয়েছে। রোববার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ইটাহাটা এলাকায় বাসের চাপায় নিহত হয়েছেন ওই তিন বন্ধু।

নিহতরা হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার ক্ষিণ মৌচাক এলাকার মৃত. মোজাহার মিয়ার ছেলে আব্দুল্লাহ আল মাফুজ ওরফে সাকিব, জামালপুরের ইসলামপুর থানার পচাবহলা এলাকার জয়নাল আবেীনের ছেলে জাকিরুল ইসলাম জনি ও টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার রেহাই মিরকুটিয়া এলাকার নুর হোসেনের ছেলে রাশেদুল ইসলাম রাজা।

জানা যায়, সাকিবের বাবা মোজাহার মিয়া বছর দুয়েক আগে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। তার এ বছর এইচএসসি পরিক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। আরেক বন্ধু রাজারও এ বছর এইচএসসি পরিক্ষা ওেয়ার কথা ছিল। অপর বন্ধু জনি ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তারা কালিয়াকৈরের মৌচাক এলাকায় পাশাপাশি বাসায় থাকতেন। পাশাপাশি থাকতেন বলে তাদের মধ্যে গভীর বন্ধু গড়ে উঠে। সাকিবের মোটরসাইকেল সার্ভিসের জন্য রোববার সকালে তারা তিনজন একত্রে গাজীপুর যাচ্ছিলেন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহসড়কের গাজীপুরের ইটহাটা এলাকায় বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল থেকে তারা তিন বন্ধু সড়কের উপর ছিটকে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতদের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

ঢাকা, ১১ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।