নির্বাচনী প্রচারণায় টিনেজারদের নিয়ে ভাবনা


Published: 2018-12-20 19:15:05 BdST, Updated: 2019-06-19 11:34:12 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: নির্বাচনকে ঘিরে সারা দেশে প্রচার প্রচারণা চলছে তুমুল বেগে। সকল দলের অংশগ্রহণে এবারের নির্বাচন জনগণের মনে এক ধরনের উৎসাহ উদ্দীপনা কাজ করছে। নির্বাচনে টিনেজার বা টিনেজারদের নির্বাচন যেটাই বলি না কেন। নির্বাচনী প্রচারণায় টিনেজারদের নিয়ে সামাজিক ভাবে ভেবে দেখার দরকার বলে অনেকেই মনে করছেন।

আসন্ন ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে, বাংলাদেশে একটি উৎসবমুখর অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা। গত ১০মজাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ১২৭ টি আসন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ও জাতীয় পার্টি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ২০টি আসনে পাশ করে। যার ফলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন এই নির্বাচনে সেই অর্থে নির্বাচনী আমেজ আসলে আর পাওয়া যায়নি।

১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রেক্ষাপট সম্পূর্ণ ভিন্ন। এবার অংশগ্রহণ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট, বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তাই অনেকদিন পরে হলেও নির্বাচনী একটা আমেজের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি আমরা।

নির্বাচনে বিরাট একটা ফ্যাক্টর হলো নতুন ভোটার ও টিনেজার। টিনেজাররা মোটেও ভোটের মালিক না। তবুও, মিছিলে সংখ্যা বাড়ানো, পোষ্টার লাগানো ও প্রচারণার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে এই টিনেজারদের।

অপেক্ষাকৃত স্বল্প বিনিয়োগে টিনেজারদের নির্বাচনে কাজে লাগলো যায়। আর এ সময়টা টিনেজারদের একদম ফ্রী সময়। ডিসেম্বর মাস, বার্ষিক পরীক্ষা শেষ। নির্বাচনী কাজে একটা টান টান উত্তেজনা কাজ করে।

এই টান টান উত্তেজনা যদি টিনেজারদের মনের কোমলতা কাটিয়ে, খানিকটা হলেও বিদ্বেষ পরায়ণতার জন্ম দেয়, তাহলে তার দায়ভার কে নিবে? নতুন ধূমপান শেখে, তার একটা বিরাট অংশও শিখে এই নির্বাচনের সময়টাতেই।

আর আমরাও জয়লাভের আশায়, লোকসংখ্যা বৃদ্ধির জন্য, যাকে ইচ্ছে তাকে দলে ভেড়ানোর ধান্ধায় আছি। "কোয়ালিটি ইজ ব্যাটার দেন কোয়ানটিটি " এটা বোধহয় আমরা ভুলেই যাচ্ছি। এই চর্চা থেকে বের হয়ে, সুস্থ ধারায় চলে আসুক রাজনীতি। রাজনীতি রাজনীতিবিদদের হাতেই থাকুক। সুস্থ ধারায় বেড়ে উঠুক আমাদের তরুণরা।

 

 


ঢাকা, ২০ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।