বেরোবিতে শিক্ষার পরিবেশ ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা


Published: 2018-05-31 20:32:10 BdST, Updated: 2018-10-20 08:54:59 BdST

বেরোবি লাইভ: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ায় বঙ্গবন্ধু পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

যে বা যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা ব্যহত করতে নানাভাবে ষড়যন্ত্র করছে এবং নিজেদের আখের গোঁছাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক ও গণিত বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মশিউর রহমান। লিখিত বক্তব্যের শুরুতে তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

বর্তমান সরকারের নানা উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শত ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে তাঁর নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে দেশের ভাবমূর্তিকে বিশ্ব দরবারে মর্যাদার সহিত তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে উন্নিত হয়েছে। সমুদ্র জয় থেকে শুরু করে মহাকাশ জয় সবই বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিক চিত্র।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রসঙ্গে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রংপুরের সর্ব স্তরের মানুষের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন ও আবেগের ফসল বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অগ্রাধিকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নকল্পে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য শেখ হাসিনার নামে অত্যাধুনিকমানের ১০তলা বিশিষ্ট একটি ছাত্রী হল এবং বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়ার নামানুসারে প্রতিষ্ঠিত ড. ওয়াজেদ রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং ইন্সটিটিউটের ১০তলা ভবন নির্মাণ কাজ চলছে।

কিন্তু বর্তমার সরকারের সাফল্যে ঈর্শানিত হয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি কুচক্রী মহল বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম এবং উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তাদের নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন, অগ্রযাত্রা ও স্বার্থ বিরোধী তৎপরতা ও ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানাই।

তিনি বলেন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে সারাদেশে সরকার বিরোধী আন্দোলনের পাঁয়তারা করার অপচেষ্টাও চালানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গিদের উত্থান ও বিভিন্ন সময় স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত-বিএনপির সরাসরি অপতৎপরতাও গভীরভাবে পরিলক্ষিত হয়েছে।

এই চক্রটিই সময় অসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজেকে বাধা প্রদান করে আসছে। এমতাবস্থাতায় এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এসময় পরিসংখ্যান বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর বিপুল হোসেন, রসায়ন বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর নুরুজ্জামান, ই-লার্নিং সেন্টারের অবজারভার মাসুদার রহমানসহ বঙ্গবন্ধ পরিষদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভারতে শান্তি নিকেতনের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ডি.লিট ডিগ্রী অর্জন এবং তা সকল বাঙালিকে উৎসর্গ করায় আন্তরিক অভিনন্দন জানানো হয়।

 


ঢাকা, ৩১ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।