রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু


Published: 2021-03-07 11:59:25 BdST, Updated: 2021-04-21 11:16:14 BdST

রাবি লাইভ: আগামী ১৪ ই জুন থেকে শুরু হবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে অনার্স (সম্মান) শ্রেণীর ভর্তি পরীক্ষা। আজ রবিবার (৭মার্চ) বেলা ১২টা থেকে শুরু হয়েছে প্রাথমিক ভর্তি পরীক্ষার আবেদন প্রক্রিয়া যা চলবে ১৮ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত চলবে। প্রাথমিক আবেদন বাছাই শেষে ২৩ মার্চ বেলা ১২টা থেকে ৩১ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত চূড়ান্ত আবেদন করা যাবে।

জানাগেছে, এবারের ভর্তি পরীক্ষা ৩টি ইউনিটে অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১৪ জুন ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা দিয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে। এরপর ১৫ জুন ‘এ’ ইউনিট এবং সর্বশেষ ১৬ জুন ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে। প্রতিটি পরীক্ষা তিনটি শিফটে হবে। তিন দিনেই ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে। প্রতি ইউনিটে ৪৫ হাজার ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। প্রতিদিন ৩ শিফটে; প্রতি শিফটে ১৫ হাজার করে ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা নেওয়া হবে। ভর্তি পরীক্ষা সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা , দুপুর ১২ থেকে ১টা ও বিকেল ৩ থেকে ৪টা, এই ৩ শিফটে অনুষ্ঠিত হবে।

এমসিকিউ পদ্ধতিতে ১ ঘন্টা মেয়াদে ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে। এতে ৫টি ভুল উত্তরের জন্য ১ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষায় নূন্যতম পাস নম্বর হবে ৪০। ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদনের ফি ৫৫ টাকা (মোবাইল ফোন অপারেটরের ১০% সার্ভিস চার্জসহ)। চূড়ান্ত আবেদনের ফি গত বছরের তুলনায় ২২০ টাকা কমিয়ে ১,১০০ টাকা (মোবাইল ফোন অপারেটরের ১০% সার্ভিস চার্জসহ) নির্ধারণ করা হয়েছে।

এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ২০২০ সালের এইচএসসি/সমমান, ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স, বিএফএ(প্রাক), বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (ভোকেশনাল), এ লেভেল এবং অন্যান্য সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই কেবল ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে পারবে।

কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের আওতাধীন কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ হতে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করা শিক্ষার্থীরাও সংশ্লিষ্ট ইউনিটে আবেদন করতে পারবে তবে তাদের প্রাপ্ত জিপিএ ৫ স্কেলে নির্ধারিত হবে। সনাতন পদ্ধতিতে ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে না। কেবল বিএফএ(প্রাক) ডিগ্রিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ফলাফল এখনও সনাতন পদ্ধতিতে হওয়ায় তাদের আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে, তবে তাদের মার্কশিট/সার্টিফিকেট থাকতে হবে।

এছাড়া মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ ৭.০০ পেতে হবে। বাণিজ্য শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৭.৫০ পেতে হবে। বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মোট জিপিএ ৮.০০ পেতে হবে।

সকল ইউনিটের জন্য জিসিই ‘ও’ লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে এবং ‘এ’ লেভেল পরীক্ষায় অন্তত ২টি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় লেভেলে মোট ৭টি বিষয়ের মধ্যে ৪টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘বি’ গ্রেড এবং ৩টি বিষয়ে কমপক্ষে ‘সি’ গ্রেড থাকতে হবে।

মানবিক, বাণিজ্য ও বিজ্ঞান শাখা হতে ২০২০ সালের এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা মানবিক (ইউনিট-এ)/বাণিজ্য (ইউনিট-বি)/বিজ্ঞান (ইউনিট-সি) ৩টি ইউনিটেই যোগ্যতা অনুযায়ী আবেদন করতে পারবে। আবেদনকারী যে ইউনিটে আবেদন করুক না কেন সে যে শাখা থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে সেই শাখার জন্য নির্ধারিত যোগ্যতা তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য যথাসময়ে পত্র-পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানানো হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকেও সংশ্লিষ্ট তথ্য জানা যাবে।

ঢাকা, ০৭ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//ওএফ//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।