রাবিতে হলের খাবারে বড়শি ও কেঁচো, শিক্ষার্থীদের ভাঙচুর


Published: 2019-09-20 22:28:50 BdST, Updated: 2019-10-14 07:32:07 BdST

রাবি লাইভ: রাজজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নবাব আব্দুল লতিফ হলের হলের ডাইনিংয়ের খাবারে মাছ ধরা বড়শি ও কেঁচো পাওয়ার অভিযোগে হলের প্রধান ফটক বন্ধ করে আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার দুপুর দুইটা থেকে চলা আন্দোলনের এক পর্যায়ে হল অভ্যন্তরে চেয়ার, সিসিটিভি ক্যামেরা ভাঙ্চুর করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এবং হলের বিভিন্ন সমস্যা নিরাসনের দাবি করেন। এদিকে ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা


জানা যায়, হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ইমরান হোসেন ডাইনিং এর মাছ ভর্তার মধ্যে বড়শি ও কেচো পাওয়ায় পর আন্দোলন শুরু হয়।
শুধু আজকে নয় এর আগেও হলের ডাইনিং এর খাবারে পোকা মাকড় পাওয়ার অভিযোগ ছিলো শিক্ষার্থীদের।

শিক্ষার্থীদের দাবি হল প্রাধ্যক্ষ তাঁদের কোনো কল্যাণে আসেন না। আন্দোলন কালে খাবারে বড়শি কেনো, অজুখানা নেই কেনো, রিডিং রুম নেই কেনো? ক্যান্টিন নেই কেনো? প্রশাসন জবাব চাই বলে শ্লোগান দিতে থাকেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

এদিকে হল প্রাধ্যক্ষ ড. একরাম হোসেন শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থামাতে চেষ্টা করলেও তারা থামেনি। ভিতরে প্রবেশ করতে চাইলেও ঢুকতে দেয়া হয়নি তাকে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান উপস্থিত হয়ে হল প্রাধ্যক্ষসহ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেন।

জানতে চাইলে প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।
হলের আবসিক শিক্ষক সাইফুর রহমানকে আহবায়ক করা হয়। অন্য দুই আবাসিক শিক্ষক ড. আব্দুল হালিম, ড. ছালেকুজ্জামান খাঁন সদস্য হিসেবে আছেন।

ঢাকা,২০ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।