রাবি: নিরাপত্তা না পেলে কেন শতকোটি টাকার মাস্টার প্লান?


Published: 2019-07-15 17:18:05 BdST, Updated: 2019-08-19 08:16:13 BdST

রাবি লাইভ: "আজ প্রশাসন শত-হাজার কোটি টাকার মাস্টার প্লান বাস্তবায়ন করছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য। এই উন্নয়ন কাদের জন্য? আমরা ৩৭ হাজার শিক্ষার্থী যদি নিরাপত্তা না পাই, কেন সে তথাকথিত মাস্টার প্লান? " এভাবেই 'ছুরিকাঘাত ও ছিনতাইয়ের' প্রতিবাদে ক্ষোভের কথা প্রকাশ করছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

ছিনতাইকারী দ্বারা এক শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত ও ছিনতাইয়ের প্রতিবাদে আয়োজিত মানব বন্ধনে এসব কথা বলছিলেন শিক্ষার্থীরা।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এ মানব বন্ধনের আয়োজন করা হয়।

এসময় শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, আমরা ৬৪ জেলা থেকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেছি। আজ প্রশাসন শত-হাজার কোটি টাকার মাস্টার প্লান বাস্তবায়ন করছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য। এই উন্নয়ন কাদের জন্য? প্রশ্ন রাখতে চাই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে। আমরা ৩৭ হাজার শিক্ষার্থী যদি নিরাপত্তা না পাই, কেন সে তথাকথিত মাস্টার প্লান? আজ সাইদুর কাল অন্য কেউ। আমাদের কেউ এখানে নিরাপদ না। আজ আমাদের কারো 'আমি' বলার সুযোগ নেই। আমি থেকে 'আমরা' হতে হবে।


যারা ভিআইপি তাদের জন্য এখানে সিসিটিভি ক্যামেরার ব্যবস্থা আছে কিন্তু সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য নেই কেন? আসলে প্রশাসন জেগে জেগে ঘুমাচ্ছে তারা দেখেও না দেখার ভান করছে। তারা যদি জেগে জেগে ঘুমায় তাহলে তাদের আমরা কিভাবে জাগ্রত করব। এসময় তারা আরো বলেন,

এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কর্মচারীরা ৪ বোতল ফেন্সিডিল সহ ধরা পরে। আবার সে কর্মচারী পরের দিন আমাদের সাথে বসে চা খায়। সে ক্যাম্পাসে আমরা কিভাবে নিরাপত্তা পাবো?

ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী রাজিউর রহমান রাজু বলেন, আমরা সাধারণ ছাত্রদের প্রতিনিধিত্ব করতে এসেছি। এই ক্যাম্পাসে আমরা কেউ নিরাপদ না।এখানে একটা সাইদুর যদি ক্যাম্পাসে নিরাপদে চলাফেরা করতে না পারে তাহলে আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থাটা কোথায়? বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সামান্য একটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে কতো কিছু করে ফেলে। অথচ ছাত্রদের নিরাপত্তা নিয়ে তাদের কোন মাথাব্যথা আছে?

কোন মাথাব্যথা নেই তাদের। এখানে একটা না ৪০ হাজার সাইদুর আছে। এখানে প্রত্যেকটা ছাত্র ১০০ বছরের এসাইনমেন্ট নিয়ে এসেছে। এই ছাত্র এখান থেকে প্রতিষ্ঠিত হতে পারলে তার পরিবার ১০০ বছর আগাবে। আমি প্রতিদিন দেখি রাত ১০ টার পর হলে পুলিশ পিকাপ নিয়ে ঘোরাফেরা করে। মাদার বক্স হলের মতো যায়গা যেখানে সবসময় ছাত্রদের আনাগোনা থাকে। সে যায়গায় যদি একটা ছাত্রের নিরাপত্তা না থাকে তাহলে এখানে পুলিশের কাজ টা কী?

লোকপ্রশাসন বিভাগের মাস্টার্স এর শিক্ষার্থী মাহাবুবুল আলমের সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য দেন ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগের রাজিউর রহমান রাজু, ইনফরমেশন সাইন্স এন্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ফজলে রাব্বী, ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান রাজিব, রিপন ইসলাম,মিটুন সরকার, ৩য় বর্ষের মাজহারুল ইসলাম, আরবি বিভাগের ৩য় বর্ষের মোস্তাফিজুর রহমান, দর্শন বিভাগের তাকবীর হোসেন প্রমুখ।

উল্লেখ্য রোববার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদারবক্স হলের পাশে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর নাম সাইদুর রহমান। সে লাইব্রেরী সায়েন্স ও ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী।

ঢাকা, ১৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।