স্থানীয় সন্ত্রাসীদের কাছে জিম্মি রাবি শিক্ষার্থীরা, নিরব প্রশাসন


Published: 2019-07-15 14:57:25 BdST, Updated: 2019-08-25 20:12:44 BdST

আব্দুল মজিদ অন্তর, রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাসের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী নাসির উদ্দিনের জন্মদিন ছিল গত শুক্রবার। বন্ধুদের সাথে জন্মদিন পালন শেষে নাসির মেসে চলে আসেন। পরে নাসিরকে জন্মদিনের উপহার দিতে তার কাজিন (ফুফাতো বোন) নাসিরের মেসের সামনে যায়।

পরে স্থানীয় তিন যুবক নাসির ও তার কাজিনকে নাসিরের রুমে নিয়ে গিয়ে মারধর ও জোরপূর্বক দুজনকে এক সাথে বসিয়ে ছবি তুলে। নাসির ও তার কাজিনের সাথে থাকা মোবাইল ফোন ও টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে ওই ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে নাসিরের কাছ থেকে আরো বিশ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে তারা।

এছাড়া নাসিরের সামনে তার কাজিনকে কুপ্রস্তাব দেয়া হলে নাসির ও তার কাজিন তাদের পায়ে ধরে কান্নাকাটি করে রক্ষা পাওয়ার চেষ্টা করে। তখন নাসিরকে মারধর করে নাসিরের সামনে থেকে মেয়েটিকে জোরপূর্বক নিয়ে আসে এবং ঘন্টা ব্যাপী আটকে রেখে শারীরিকভাবে লাঞ্জিত করে মেয়েকে ছেড়ে দেয় তারা।

আজকেও নাসিরকে আটকে রেখে সেই টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দেয়, টাকা না দিলে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। নাসির টাকা ম্যানেজ করার কথা বলে কোন রকমে ছাড়া পেয়ে চলে আসে।

সে এখন আতঙ্কিত হয়ে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছে এবং ভয়ে মেসে যেতে পারছে না। বিষয়টি তার বন্ধুদের কাছে শেয়ার করে, পরে তার বন্ধুদের কাছ থেকে বিষয়টি জানার পর নাসিরের কাছে যাই ঘটনা সম্পর্কে জানতে। নাসির ঘটনার বর্ণনা করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে ও বাঁচার আকুতি জানায়।

ঘটনা-২ আজ রাত ৯ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হলের সামনের পুকুর পাড়ে ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের সাইদুর রহমান নামের এক শিক্ষার্থীকে নয় জন ছিনতাইকারী তার পথরোধ করে তাকে ছুরিকাঘাত করে মোবাইল ফোন ও টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে তাকে শিক্ষার্থীরা উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে মাদার বখশ হলে নিয়ে আসা হয়।

ফেসবুকের সেই একটি স্ট্যাটাস

 

নাসির ও সাইদুরের ঘটনায় স্থানীয় দুবৃর্ত্তদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আদৌ কি ব্যবস্থা নিতে পারবেন? অতীত ইতিহাস বলছে, প্রশাসনের দ্বারা তা সম্ভব নয়। তবে শিক্ষার্থীরা চাইলে বিচার আদায় করে নিতে সক্ষম হয়েছে এরকম নজির রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে। কারণ তখন শিক্ষার্থীরা ছিল ঐক্যবদ্ধ।

আবারো কি আমরা পারি না বিচার আদায় করে নিতে ঐক্যবদ্ধ হতে ? এরকম ঘটনা জানার পরেও কি আমরা ঘুমিয়ে থাকবো? কোন সাহসে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে একের পর এক এরকম ঘটনা ঘটাচ্ছে স্থানীয় দুর্বৃত্তরা?

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ এ ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত শাস্তির আওতায় আনুন । আর সক্ষমতা না থাকলে গদি থেকে নামুন। শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান মেরুদন্ড সোজা করে নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মাঠে নামুন।


ঢাকা, ১৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।