ডিআইজির লাচ্ছির বোতলের ক্যাপ খুলে দিলেন রাবি প্রক্টর


Published: 2019-05-25 00:16:06 BdST, Updated: 2019-06-26 00:28:45 BdST

রাশেদুল ইসলাম রাজন, রাবি : বিভিন্ন প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ বিশিষ্টজনদের সঙ্গে নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশবিদ্যালয়ের প্রক্টর দপ্তরের উদ্যোগে শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ সিনেট ভবনে এ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

এসময় দেখা যায়, অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত অতিথি রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমান, রাজশাহী রেঞ্জ পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এম খুরশীদ হোসেনসহ ডিআইজি একেএম হাফিজ আক্তারের লাচ্ছির বোতলের ক্যাপ খুলে দিয়েছেন রাবি প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান।

এদিকে রাবি শিক্ষকদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক এবং প্রক্টর হিসেবে প্রফেসর ড. লুৎফর রহমানের এধরনের আচরণ শিক্ষক জাতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্য করেছেন। শুধু তাই নয় ইফতারের পর থেকে এবিষয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার ঝড় চলছে শিক্ষকদের মাঝে।

ফোকলোর বিভাগের প্রফেসর ড. আমিরুল ইসলাম কনক বলেন, একজন মানুষের প্রতি একজন মানুষের আতিথিয়তা একটি ভাল গুণ। কিন্তু সেই সাথে মানুষের পদ-মর্যাদা এবং তার অবস্থানের বিষয়টাও মাথায় রাখা উচিৎ। আর এই পদ-মর্যাদা রক্ষা করে চলাটাও ব্যাক্তিত্বের লক্ষণ।

জানতে চাইলে এবিষয়ে প্রতক্ষ্যদর্শী প্রফেসর ড. এনামুল হক বলেন, একজন শিক্ষক হিসেবে প্রক্টরের এধরনের আচরণ মারাত্বক অশোভনীয়। এবিষয়ে অনেক শিক্ষকই সমালোচনা করছেন। এটা একজন প্রফেসরের কাজ নয়। সেক্ষেত্রে এটা আমাদের কাম্য নয়। এটা অতিরঞ্জিত, অতি তোষামদী। এটা পুলিশ কমিশনারের কাছে মান সম্মান জলাঞ্জলি দেয়া।

সাবেক এক উপ-উপাচার্য এবিষয়ে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষকদের রাষ্ট্রের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ মর্যাদার যায়গা রয়েছে। আর এই মর্যাদা রক্ষা করাই হলো প্রতিষ্ঠানের গৌরব। আর সেটা রক্ষা করেণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এবিষয়ে প্রক্টর ড. লুৎফর রহমান বলেন, ভিসিও যেমন ডিসিও তেমন তুমিও সেরকম। আমার কাছে সব অতিথিই সমান। আমি তো হোস্ট। উনারা লাচ্ছি খুলে খেতে পারছিলনা তাই তাদের একটু সাহায্য করেছি।

ইফতারের পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম দোয়া-মোনাজাত পরিচালনা করেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক রোস্তম আলী, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এমএ বারী, জেলা প্রশাসক আব্দুল কাদের, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু, সহকারী প্রক্টর এবং রাজশাহীতে নিযুক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্বে নিযুক্ত পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা, ২৫ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।