"রুয়েটে ডাইনিং বন্ধ, খাবার নিয়ে বিপাকে শিক্ষার্থীরা"


Published: 2019-05-06 17:45:00 BdST, Updated: 2019-07-17 19:28:37 BdST

রাশেদ রাজন: রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) ৭টি আবাসিক হলের ডাইনিং বন্ধ থাকায় খাবার নিয়ে বিপাকে পড়েছে প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী। এদিকে ক্যাম্পাসের দোকানগুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন উচ্ছেদ করে দেওয়াই শিক্ষার্থীদের এই ভোগান্তি বেড়েছে আরো কয়েকগুণ।

সকাল, দুপুর, বিকেলের নাস্তা কিংবা রাতের খাবারের জন্য শিক্ষার্থীদের যেতে হচ্ছে ভদ্রা, তালাইমারি, মোন্নাফের মোড় ও কাজলায়। এতে যেমন শিক্ষার্থীদের সময় নষ্ট হয়েছ তেমনি গুণতে হয়েছ বাড়তি টাকাও। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, প্রধান ফটক থেকে হল দূরে হওয়াই ছাত্রদের চেয়ে আরো বেশি কষ্টের মধ্যে আছে ছাত্রী হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, পূর্ব ঘোষিত সময়সূচী মোতাবেক রুয়েটের বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষাসমূহ রমযানের অবকাশকালেও যথারীতি অনুষ্ঠিত হবে। রমযানের অবকাশকালীন সময়ে প্রশাসনিক কর্মকান্ড ও অফিস চলবে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত।

সূত্রে জানা গেছে, রুয়েট রমযান এবং গ্রীস্মকালীন অবকাশ এর ছুটি গত ০৪ মে শনিবার থেকে শুরু হলেও ডাইনিং বন্ধ হয় গত ২৫ এপ্রিল থেকে। আর এরই মাঝে পরিক্ষা চলছে ১৪ ব্যাচের প্রকৌশল অনুষদের শিক্ষার্থীদের। বেশ কয়েকটি বিভাগের পরিক্ষা চালু থাকবে আগামী ১৯ মে পর্যন্ত।

রুয়েটের আবাসিক শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, ডাইনিং বন্ধের মধ্যে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ না করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্যাম্পাসের দোকানগুলো উচ্ছেদ করার কারণে ব্যাপকভাবে ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছ আমাদের। এদিকে আবার চলছে পরিক্ষাও। প্রতিবেলা খেতে গেলে সময় নষ্ট হয়েছ প্রায় ঘন্টা খানেক বা তারও বেশি।

দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলের আবাসিক ছাত্রী তাবাসসুম তিশা বলেন, আমাদের ছাত্রী হল মূল ক্যাম্পাস থেকে অনেক দূরে। হল থেকে সন্ধ্যার পরে বের হওয়ার কোন নিয়ম না থাকায় রাতে খাবার দিনের বেলায় নিয়ে আসা লাগে প্রতিদিন। এতে বেশির ভাগ সময় খাবার নষ্ট হয়ে যায় প্রচন্ড গরমে। এদিকে হলে খাবার রান্না করাও নিষেধ প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

আমরা চাই ছাত্রছাত্রীদের এই সমস্যাগুলো আমলে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অতিদ্রæত এই সমস্যার সমাধান করবে। শিক্ষার্থীদের স্বার্থের দিকে তাকিয়ে ক্যাম্পাসে স্থায়ী অস্থায়ী দোকানগুলোর দ্রুত অনুমোদন দিবে।

রুয়েট ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. রবিউল আওয়াল বলেন, রুয়েটের ইজারা কমিটি ক্যাম্পাসের অবৈধ্য দোকানগুলো উঠাই দিয়েছে। ইজারা কমিটির অনুমোদন নিয়ে খুব দ্রুতই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্যাম্পাসে দোকান করে দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে ।

অন্যদিকে রুয়েটে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর এবং গ্রীস্মকালীন ছুটি ৩১ মে থেকে শুরু হয়ে তা চলবে ১৪ জুন পর্যন্ত। এ সময়ে রুয়েটের সকল প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

ঢাকা, ০৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।