বিসিএসের স্বপ্ন ছুঁয়ে দেখার আগেই ছাত্রীর আত্মহত্যা!


Published: 2019-01-07 21:25:50 BdST, Updated: 2019-03-22 23:13:43 BdST

জয়পুরহাট লাইভ: মার্স্টাস শেষ বর্ষে পড়াশোনা করতেন তিনি। বিসিএসের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। বিশেষ প্রস্তুতির জন্য কোচিংয়েও ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। আর কদিন বাদেই তিনি স্বপ্ন ছুঁয়ে দেখতে পারতেন। তবে মরণব্যাধি ক্যান্সার তার সেই স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখতে দেয়নি। ক্যান্সারে মৃত্যুর আগেই নিজেকে সপে দিয়েছেন তিনি।

চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। জয়পুরহাট সরকারি ডিগ্রি কলেজ ছাত্রী শাপলা খাতুনের ভয়ংকর পথ বেছে নেয়ার গল্প এটি। বোকার মতো চলে যাওয়ার আগে তিনি চিরকুট লিখে গেছেন। এতে কাউকে দায়ি করে যাননি তিনি।

তিনি লিখেছেন, ‘আমার ক্যান্সার, আমি বাঁচবো না। আমার মৃত্যুর জন্য আমি নিজেই দায়ি।’ এমন কথা লিখে জয়পুরহাট শহরের শান্তিনগর মহল্লার একটি মেসে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। শাপলা খাতুন জয়পুরহাট সদর উপজেলার দাদড়া-জন্তি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী এবং জয়পুরহাট সরকারি ডিগ্রি কলেজের মাস্টার্সের ছাত্রী ছিলেন।

এবারের বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিতে বিশেষ কোচিং করার জন্য শান্তিনগর মহল্লার ওই ছাত্রী মেসে থাকতো। রোববার রাতে ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার স্বামী জাহাঙ্গীর আলমের দাবি, ‘তীব্র মাথা ব্যথা সহ্য করতে না পেরে তার স্ত্রী শাপলা আত্মহত্যা করেছে’।

ওই ছাত্রী মেসে থাকা তাবাসুম ও মুক্তাসহ অন্যরা জানান, প্রায় ৯ মাস আগে শাপলা খাতুনের বিয়ে হয়। সে বিসিএসের কোচিং করার জন্য সে ওই ছাত্রী মেসে থাকতো। অনেকদিন থেকে তার তীব্র মাথা ব্যথা করতো।

রোববার বিকেলে তার প্রচণ্ড মাথা ব্যথা করছে বলে আমাদের জানায়। রাতে তার কক্ষের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ এবং কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে মোবাইল ফোনে আমরা তার স্বামীকে খবর দেই। পরে তার স্বামী এসে দরজা ভেঙ্গে কক্ষের প্রবেশ করে দেখে যে তার লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে। ওই সময় তার হাতে একটি চিরকুট পাওয়া যায়।

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো: মমিনুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে এটিকে ‘আত্মহত্যা’ বলেই মনে হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে উল্লে­খ করেন তিনি।

 

 

ঢাকা, ০৭ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।