রাবি: ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সাংবাদিকতা চর্চায় প্রধান অন্তরায়’


Published: 2018-10-10 23:29:59 BdST, Updated: 2018-10-19 05:03:34 BdST

রাবি লাইভ: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বিচারের আগেই বিচার ও শাস্তির বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে দাবি করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘বাংলাদেশে ডিজিটাল যোগাযোগের চর্চা শুরু হয়েছে যাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। তবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বেশ কিছু ধারা সেই চর্চার অন্তরায় হয়ে উঠবে বলে আমরা মনে করছি।

এই আইনের মাধ্যমে আপনাকে জামিন অযোগ্য ধারায় বিচারের আগেই বিচারের বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে। শাস্তির বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে। মাসের পর মাস বছরের পর বছর। বিভিন্ন গোষ্ঠী এই আইনের অপব্যবহার করতে পারে। অপব্যবহার করার পর্যাপ্ত সুযোগ আছে।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার সাথে সাংঘর্ষিক ধারা সমূহ বাতিলের দাবিতে রবীন্দ্র ভবনের সামনে এক মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে। সাংবাদিকতা বিভাগের ব্যানারে বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে এই মানববন্ধনের বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রফেসর আল মামুন বলেন, সরকার যদি দূরদর্শী হয় তাহলে তারা যেটা করতে পারত যে তারা কিন্তু সবসময় সরকারে নাও থাকতে পারে। ভবিষ্যতে এই আইন তাদের বিরুদ্ধে শাস্তি বিধানের জন্য ব্যবহার হতে পারে। বর্তমানে অপব্যবহার হচ্ছে ভবিষ্যতে আরও অপব্যবহার হতে পারে।

এবং সাংবাদিকতা চর্চার ক্ষেত্রে, চিন্তার ক্ষেত্রে এটা একটা বড় রকমের বাধা বলে আমরা মনে করি। আমরা মনে করি এই আইনের কিছু ধারা অবশ্যই পরিবর্তন করা প্রয়োজন। এসময় অন্যযেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাংবাদিকতা চর্চা করা হয় তাদেরও এই আইনের ওইসব ধারা নিয়ে আলোচনা করা, প্রতিবাদ করার দাবি জানান।

বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মামুন আব্দুল কাইয়ুমের সঞ্চালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বিভাগের প্রফেসর ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে, মশিহুর রহমান, অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর কাজী মামুন হায়দার রানা, মাহাবুর রহমান অনিন্দ্য, লেকচারার আব্দুল্লাহ বাকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

 


ঢাকা, ১০ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।