রাবিতে আমেরিকান শিক্ষার্থীকে মারধর করেছে নেপালী শিক্ষার্থী


Published: 2018-08-08 19:45:08 BdST, Updated: 2018-10-24 11:46:03 BdST

রাবি লাইভ: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বিদেশি দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মীর আব্দুল কাইয়ূম ইন্টারন্যাশনাল ডরমিটরির ডাইনিয়ে উচ্চস্বরে কথা বলা নিয়ে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই দুই শিক্ষার্থীদের মারামারিতে একজনের মাথায় জখম হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহন করেন। মারধরের শিকার ডোমেন জোসেফ আমেরিকান অধিবাসী। তিনি ইউনিভার্সিটি অফ নিউ মেক্সিকো’র শিক্ষক। ডোমেন জোসেফ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ফোকলর বিভাগে পিএইচডি করতে এসেছেন। অন্যদিকে মারধরকারী শিক্ষার্থী রুপোষ কুমার মিত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এ এনিমেল সায়েন্স বিভাগের দিত্বীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ী নেপাল।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সকাল সাড়ে দশটার দিকে ওই দুই শিক্ষার্থী খাবার খেতে ডাইনিংয়ে আসে। এসময় নেপালী শিক্ষার্থী উচ্চস্বরে কথা বললে আমেরিকান শিক্ষার্থী জোসেফ তাকে বারন করেন। কিন্তু তারপরও রুপোষ উচ্চ স্বরে কথা বললে তাদের দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে জোসেফ গালিগালাজ করলে রুপোষ হাতের কাছে থাকা জগ দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। এতে জোসেফের মাথায় জখম হয়। পরে তাকে বিশ্ববিদ্যালয়েল চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ বিষয়ে জোসেফ প্রক্টর বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

অভিযোগ পত্রে তিনি বলেন, গতকাল রাতে রুপোষ ডাইনিয়ে উচ্চ স্বরে কথা বলছিল। তখন আমি বারন করি। কিন্তু সে শুনেনি। পরে বুধবার সকালে আবার ডাইনিয়ে উচ্চস্বরে কথা বললে আমি বারন করি। কথা বলার একপর্যায়ে সে আমাকে জগ দিয়ে মাথায় আঘাত করলে মারত্মক জখম হয়। অভিযোগ পত্রে তিনি নিরাপদ স্থানে থাকার আবেদন জানান।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর লুৎফর রহমান ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ঘটনা শোনার পর আমি দু’জন সহকারী প্রক্টর পাঠিয়েছিলাম। যতদূর শুনেছি বিদেশি দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে কথাকাটি হয়। জানতে পেরেছি, একজন অপরজনরে জগ দিয়ে অঘাত করলে তার মাথা অল্প অঘাত পায়।


ঢাকা, ০৮ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।