রাবির দুর্নীতিবাজ প্রশাসনের অপসারণ চায় শিক্ষকরা


Published: 2020-11-26 19:48:13 BdST, Updated: 2021-01-17 15:13:59 BdST

রাবি লাইভঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান দুর্নীতিবাজ প্রশাসনেরর অপসারণ চায় দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষকরা। এছাড়াও অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার দাবিও জানিয়েছে রাবির মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষকসমাজের একাংশ।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্সে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষকদের পক্ষে পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক ও ভূতত্ত্ব ও খণিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু বলেন, বিভিন্ন গণমাধমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে আমরা জানতে পেরেছি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন গঠিত তদন্ত কমিটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বর্তমান উপাচার্যসহ প্রশাসনের কতিপয় ব্যক্তিকে বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের ২৫টি অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন এবং ইউজিসির প্রতিবেদন প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছেন।

সুতরাং ইউজিসির তদন্তে অনিয়ম-দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনার নৈতিক ভিত্তি হারিয়েছে বলে জানান শিক্ষকরা এবং তদন্ত প্রতিবেদন সম্পর্কে সরকার কোন সিদ্ধান্ত গ্রহনের পূর্বে সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার আহ্বান করেন। তাছাড়া ইউজিসির প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে দ্রুত সময়ের মধ্যে রাবির দুর্নীতিগ্রস্থ প্রশাসনের অপসারণসহ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এসময় লিখিত বক্তব্যে বেশ কয়েকটি বিষয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিতের আহ্বান জানান। চলমান এসব নিয়োগ প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছ ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট ও ফলিত গণিত বিভাগে প্রভাষক পদে নিয়োগ, বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে ১৩জন মেডিকেল অফিসার এবং আরো ১৪টি পদে নিয়োগ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার অব এক্সেলেন্স এন্ড লার্নিং এ ৪টি পদে নিয়োগ।

এছাড়াও শিক্ষকগণ জানান, করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সকল কাজ চললেও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্ট ১৯৭৩ অনুযায়ী ৬টি অথরিটি এবং ১২টি পদে ডীন পদে নির্বাচন সম্পন্ন না করেই নজিরবিহীনভাবে ৫০৩তম সিন্তিকেটে শিক্ষক প্রতিনিধি ছাড়াই নিয়োগ বোর্ড গঠন করা ও নিয়োগ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

এমতাবস্থায় দ্রুততম সময়ের মধ্যে অথরিটি ও ডীনসমূহের নির্বাচন সম্পন্ন করে আইন অনুযায়ী সিক্তিকেট পরিচালনা ও নিয়োগ বোর্ড গঠনের দাবিও জানান তারা।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয় মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খান, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সফিকুন্নবী সামাদী, ইংরেজী বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মামুন, প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এসএম এক্রাম উল্যাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা, ২৬ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আরআর//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।