আকিব হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে শেকৃবিতে মানববন্ধন


Published: 2019-11-11 21:55:08 BdST, Updated: 2019-12-11 22:50:40 BdST

শেকৃবি লাইভঃ রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র আকিব ইসলাম খান অমি হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে। আজ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এই মানববন্ধন হয়।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ করেন। শিক্ষার্থীরা ‘আর কত শিশু হারাবে’, ‘খেলতে গিয়ে সর্বনাশ ফিরে এল অমির লাশ’, ‘আইন তুমি হও উন্নত হও শির’, ‘ঘাতকের ফাঁসি চাই’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত পোস্টার নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়।

শেকৃবি ভিসি কামাল উদ্দিন আহম্মদ এই হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, 'মানুষ কতটা অমানুষ হলে নির্মম অত্যাচার করে নিষ্পাপ শিশুকে হত্যা করতে পারে। সরকার এবং আইন প্রয়োগকারী সংশ্লিষ্টদের কাছে দাবি রাখছি সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনার জন্য।

আমরা সবাই এ ধরণের অপকর্মের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবো।' গত ২ নভেম্বর মাঠে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় শেরপুরের নালিতাবাড়ীর আব্দুর রউফ খানের ছেলে আকিব ইসলাম অমি। গত বুধবার (৬ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে পৌর শহরের কালিনগর এলাকায় তল্লাশির সময় পুলিশ ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করে।

শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশের ধারণা। লাশ উদ্ধারের পর পুলিশ তিন প্রতিবেশীকে গ্রেপ্তার করেছে। তাঁরা হলেন রাকিবুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন ও সিয়াম। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরও সাতজনকে আটক করা হয়েছে।

শেকৃবির মানববন্ধনে আকিবের বড় ভাই শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী গোলাম রাব্বি জেনিথ বলেন, আমার ভাইয়ের হত্যাকান্ডে যারা প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে জড়িত আছে তাদের সবারই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

শেকৃবির প্রো-ভিসি অধ্যাপক মো. সেকেন্দার আলী, সহকারী প্রক্টরর রুহুল আমিনসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক মানববন্ধনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন এবং খুনীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান। তারা বলেন একটা স্বাধীন দেশে এসব মেনে নেয়া যায় না। অবশ্যই এর সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে।

ঢাকা, ১১ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।