ইবির ক্যাফে বন্ধ, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা, দেখার কেউ নেই!


Published: 2019-06-16 21:09:34 BdST, Updated: 2019-07-24 07:13:23 BdST

রায়হান মাহবুব, ইবিঃ কি খাবেন শিক্ষার্থীরা? কোথায় খাবেন সকালের নাস্তা। রাতের খাবার খাওয়া নিয়েও রয়েছে দুশ্চিন্তা। এনিয়ে চলছে নানান দেন দরবার। ক্ষোভ। শিক্ষার্থীরা বলছেন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এমনটি হতে পারে না। দীর্ঘ দেড় মাস ছুটি শেষে শনিবার (১৫ জুন) হতে 

ইবি) শুরু হয়েছে একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম।

ক্যাম্পাস খুললেও চালু হয়নি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া। বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তারা এনিয়ে দফায় দফায় মিটিং করছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে। তারা বলছেন কাছে ধারে কোন হোটেল নেই। যা রয়েছে তাতেও কিনতে হচ্ছে প্রায় দিগুন মূল্যে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনের (টিএসসিসি) নিচতলার পশ্চিম পাশে অবস্থিত কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া। বিশ্ববিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে এখানে অধিকাংশ শিক্ষক-শিক্ষার্থী,কর্মকর্তা-কর্মচারী সকাল ও দুপুরের খাবার গ্রহন করেন।

সকালে ১৫ থেকে ২৫ টাকা এবং দুপুরে ৩৫ থেকে ৬০ টাকা মূল্যে শিক্ষার্থীরা খাবার খেয়ে থাকেন। শিক্ষার্থীরা সকালে ক্যাম্পাসে এসে ক্যাফেটেরিয়াতে ভীড় জমায় এবং সকালের নাস্তা সেরে নেয়। দিনের অধিকাংশ সময়ই শিক্ষার্থীদের পদচারনায় মুখরিত থাকে কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া।

কিন্তু ক্যাম্পাস খোলার দুই দিবস পার হলেও চালু হয়নি ক্যাফেটেরিয়া। লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী রুবেল ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমরা ক্লাস না থাকলে ক্যাফেতে এসে আড্ডা দেই। নাস্তা করি। গানের আসর জমাই। কিন্তু বন্ধ থাকায় খাবার বেশি দামে হোটেল থেকে খেতে হচ্ছে। যেহেতু হল ডাইনিংয়ের খাবার খুবই নিম্নমানের, তাই হোটেলে খাই।

এদিকে রাতে ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ থাকায় অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আবাসিক হলগুলোর অধিকাংশ শিক্ষার্থী। সাদ্দাম হোসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী নীল ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে রাতে ক্যাফে খোলা থাকে, আমাদের এখানে থাকে না। রাতে বসে আড্ডা দেওয়ার মতো কোন ভালো জায়গা আমাদের এখানে নেই।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অনেক শিক্ষার্থী ক্যাফেতে বাকি খাবার গ্রহন করে। পরে তারা বাকি পরিশোধ করে না। এতে ক্যাফেটেরিয়া চালাতে হিমশিম খেয়ে যায় পরিচালক। কাঁচাবাজারে বড় অঙ্কের টাকা দেনা হয়ে যাওয়ায় পরিচালক ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে গেছেন বলে জানা গেছে।

একারণে ক্যাফেটেরিয়া বন্ধ রয়েছে। তবে ক্যাফেটেরিয়ার পরিচালকের সাথে মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। এদিকে রবিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়া পরিচালনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় ক্যাফটেরিয়া পরিচালনার ব্যাপারে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। কমিটির সদস্য সচিব ও স্টেট অফিসের উপ-পরিচালক মোঃ সাইফুল আলম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আগামী ১৯ জুন(বুধবার) দুপুর বারোটার মধ্যে ক্যাফেটেরিয়া পরিচালনায় ইচ্ছুক ব্যক্তিদের টিএসসসিসি অফিসে যোগাযোগ করতে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,প্রক্টর(ভারপ্রাপ্ত) সহযোগী অধ্যাপক মোঃ আনিছুর রহমান,স্টেট অফিসের সহকারী-রেজিস্ট্রার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমুখ। এ বিষয়ে টিএসসিসি'র পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ ইয়াসিন আলী বলেন, "আগামী বুধবার ক্যাফেটেরিয়া পরিচালনায় ইচ্ছুক ব্যক্তিদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে।

সাক্ষাৎকারে উপযুক্ত ব্যক্তিকে বাছায় করে নিয়োগ দেওয়া হবে। আশা করি আগামী শনিবার হতে আবার ক্যাফেটেরিয়া চালু হবে।"

ঢাকা, ১৬ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।