জিন জিন করে জপলেই আসবো, ইংলিশে কথা,ওয়াকিটকি ও আর্মস!সোহেল তাজের ভাগ্নে সৌরভ মায়ের বুকে, নাটকের অবসান


Published: 2019-06-20 14:22:08 BdST, Updated: 2019-08-22 22:28:46 BdST

ময়মনসিংহ লাইভঃ নাটকীয়তার অবসান হলো। জিন, র‌্যাব নানান আলোচনা ও সমালোচনার পর অবশেষে তাকে উদ্ধার দেখানো হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন থেকেই গেলো তাহলে কি ঘটেছিণ সৌরভের ভাগ্যে? কেন তাকেউঠিয়ে নেয়া হলো আর কেনইবা ফেরত দেয়া হলো এই নাটকের নেপথ্যে কাদের হাত ছিল। চট্টগ্রাম থেকে অপহৃত সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজের ভাগ্নে সৈয়দ মোহাম্মদ ইফতেখার আলম সৌরভকে (২৫) ১১ দিন পর ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা থেকে উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বেলা সাড়ে ১১টা। সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ নিখোঁজ সৌরভের বাবা মাকে নিয়ে তাদের বাসার সামনে ভাগ্নের ফিরে আসার অপেক্ষায় রয়েছেন। ফেসবুক লাইভে বললেন, যে কোনো সময় সৌরভকে নিয়ে উদ্ধারকারী পুলিশের গাড়ি এখানে উপস্থিত হবে। বাসার বাইরে তখন বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা রাস্তার দিকে ক্যামেরা তাক করে দাঁড়িয়ে রয়েছেন।

বেলা ১১টা ৩৩ মিনিটে পুলিশের একটি প্রিজন ভ্যান বাসার সামনে পৌঁছা মাত্রই প্রবেশ গেট খুলে দেয়া হয়। প্রিজন ভ্যানের পিছনেই একটি মাইক্রোবাস এসে থামলে সোহেল তাজ সেটি ভেতরে ঢুকিয়ে দিতে বলেন। ১১টা ৩৪ মিনিটে মাইক্রোবাসের গেট খুলে একজন পুলিশ সদস্য নেমে দাঁড়ালে তার পিছন থেকেই সৌরভ নেমেই দু কদম হেঁটে মাকে জড়িয়ে ধরেন। মায়ের বুকে মুখ লুকিয়ে ফুঁপিয়ে কেঁদে উঠেন। এরই মধ্যে দিয়ে ১১ দিন পর মা ও ছেলের বিচ্ছেদের সমাপ্তি ঘটে। মিনিট খানেক পর বাবা ও সোহেল তাজকে বুকে জড়িয়ে ধরেন সৌরভ। এ সময় গণমাধ্যম কর্মীরা তার সঙ্গে কথা বলতে চাইলে সৌরভকে নিয়ে তার বাবা, মা ও সোহেল তাজ লিফটের দিকে এগিয়ে যান। লিফটে উঠে সোহেল তাজ শরীর কেমন জিজ্ঞাসা করলে সৌরভ উত্তরে ভালো আছি জানায়।

পুলিশ জানায়, ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ আজ বৃহস্পতিবার বলেন, ‘আজ ভোর ৫টা ২৭ মিনিটে তারাকান্দা উপজেলার মধুপুর বটতলা এলাকার জামিল রাইস মিলের কাছে কে বা কারা সৌরভকে রেখে যায়। সেখান থেকে তাঁকে উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ।’

জেলা পুলিশ সুপার শাহ মো. আবিদ হোসেনের কার্যালয়ে গণমাধ্যমকে বিফ্রিং করা হয়। এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, ‘রাইস মিলের ম্যানেজার সমির ভোরে সৌরভের পরিবারকে ফোন করে তাঁকে পাওয়ার কথা জানান। পরে সিটিইউ পুলিশ সুপারকে ফোন করে বিষয়টি জানান। পুলিশ সুপার, ডিবির ওসি ও তারাকান্দা থানার ওসি পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান।’ ‘গিয়ে দেখেন সৌরভ সেখানে একটি চেয়ারে বসে আছেন।

পরে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। এরপরই সৌরভের পরিবারের সঙ্গে কথা বলি। পরিবারের ইচ্ছা অনুযায়ী সৌরভকে ঢাকার বনানীর বাসায় পাঠানো হয়েছে।’ব্রিফিংয়ে এর বেশি কিছু জানাতে চাননি পুলিশ সুপার। এ বিষয়ে ময়মনসিংহে কোনো আইনি প্রক্রিয়াও নেওয়া হয়নি। এর আগে সৌরভের বাবা সৈয়দ ইদ্রিস আলম চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানায় গত ১০ জুন একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ঈদের ছুটিতে সৌরভ চট্টগ্রামের বাসায় বেড়াতে যান। গত ৯ জুন পাঁচলাইশ আফমি প্লাজার সামনে থেকে দুজন লোক তাঁকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।
সৌরভ ঢাকার ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্র্যাজুয়েশন করে একটি বেসরকারি সংস্থার পক্ষে ডকুমেন্টরি তৈরির কাজ করতেন।

সৌরভ সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজের মামাতো বোন সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমানের ছেলে। গত শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে সোহেল তাজ নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে তাঁর ভাগ্নেকে অপহরণের কথা জানান।

উদ্ধার নাটকের অবসান

 

ওই পোস্টে সোহেল তাজ লেখেন, ‘আমার মামাতো বোনের ছেলে (ভাগিনা), সৈয়দ ইফতেখার আলম প্রকাশ (সৌরভ)-কে গত রোববার ৯ জুন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালের সামনে থেকে অপহরণ করা হয়েছে যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তাদের অনুরোধ করছি সৌরভকে ফিরিয়ে দিতে তার পরিবারের কাছে অন্যথায় আপনাদের পরিচয় জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে ঘটনার আড়ালে কারা আছেন, তা আমরা জানি।’

এদিকে সোহেল তাজের ফেসবুক লাইভে সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান জানান, এর আগে ঢাকার বনানী থেকে একটি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নাম করে সৌরভকে নিয়ে যাওয়া হলেও তাকে অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেয়া হয়। ওই বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা সৌরভের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত। তিনি আরও দাবি করেন, ওই বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা নিজেদের ‘জিন’ হিসেবে পরিচয় দেন। সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান জানান, নিখোঁজ হওয়ার আগে নিজেদের জিনের সদস্য পরিচয় দিয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে ফোন করে সৌরভকে ডেকে নেয়া হয়।

কথিত জিনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েই নিখোঁজ হন সৌরভ। ফেসবুক লাইভে সোহেল তাজ তার মামাতো বোন সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমানের কাছে জানতে চান, ‘ইয়াসমিন (সৌরভের মা) আপা আপনাকে কী বলে গিয়েছিল সৌরভ?’ জবাবে সৈয়দা ইয়াসমিন বলেন, ‘হ্যাঁ জিজ্ঞাস করেছি। যারা তাকে এর আগে উঠিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। তারা সৌরভকে বলেছে, তোমার তো কোনো দোষ নেই, আমরা যদি তোমাকে একটা ভালো জায়গা প্রোভাইড করি। তখন সৌরভ বলেছিল তাদের, আপনারা যা প্রয়োজন করেন তবুও এই যন্ত্রণা থেকে মুক্ত করেন।’

সোহেল তাজ আবারও প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘তার মানে আপনাকে মূলত সৌরভ বলে গিয়েছে যে, ওই যে মে মাসের ১৬ তারিখে যারা উঠিয়ে নিয়েছিল তারাই তাকে চাকরি দেয়ার কথা বলেছে।’ সৈয়দা ইয়াসমিন বলেন, ‘সৌরভ নাকি চোখবাঁধা অবস্থায় জিজ্ঞাস করেছিল, আমি আপনাদের সঙ্গে যোগাযোগ করব কীভাবে? তখন সৌরভকে তারা বলেছে, তোমার যোগাযোগ করতে হবে না, আমরাই তোমার সঙ্গে যোগাযোগ করব।

সৌরভ আরও বলেছে, জিন জিন করে জপতে থাকলেই তারা চলে আসবেন। তারা প্রত্যেকে ইংলিশে কথা বলছিল, প্রত্যেকে শিক্ষিত ও তাদের কাছে ওয়াকিটকি ও আর্মস ছিল।’
তিনি আরও বলেন, ‘যেদিন সৌরভ গুম হলো, এর একদিন আগে আবার সেই নম্বর থেকে সৌরভের কাছে আসে।

তখন তাকে সার্টিফিকেট নিয়ে যেতে বলে তারা চাকরি দেবে বলে। তখন সৌরভ বলে, আমার মা অসুস্থ আজ পারব না। তখন তারা আবার ফোন করে বলে, আমাদের দুইজন অফিসার তোমার সঙ্গে বসবে। তাদের কাছে তুমি তোমার পাসপোর্টে ও এনআইডি কার্ডের ফটোকপি দিয়ে আসবে। পরে সৌরভ ফটোকপি করতে গেলে গুম হয়ে যায়।’

যোগাযোগ রাখছে না পুলিশঃ

এদিকে ফেসবুক লাইভে সোহেল তাজ জানান, সৌরভ নিখোঁজের বিষয়ে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও এরপর থেকে সৌরভের পরিবারের সঙ্গে পুলিশ যোগাযোগ করেনি। উল্টো তার বাবা মো. ইদ্রিস আলীর কাছে ওসি জানতে চেয়েছেন, সংবাদ সম্মেলনের পর কেউ যোগাযোগ করেছিল কি না। সৌরভের বাবা ইদ্রিস আলী ওরফে মানিক ফেসবুক লাইভে বলেন, ‘আমার সঙ্গে থানা থেকে যোগাযোগ করা হয়নি, আমি নিজে থেকেই যোগাযোগ করেছি।

তখন ফোনে ওসি সাহেব (চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানা) আমাকে বলেন, আপনারা কোথাও থেকে কোনো ধরনের তথ্য পেয়েছেন কি না? তখন আমি বললাম, আমরা তো কোনো তথ্য পাইনি। পরে এক পর্যায়ে আমি ওসিকে বলাম, সমস্ত ফুটেজ থেকে শুরু করে সবকিছু তো আপনাদের কাছে আছে।’

লাইভ ভিডিওতে সৌরভের বাবা ইদ্রিস আলী পুলিশ তার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি- এমন অভিযোগ করলেও পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাসেম ভূঁইয়া কাছে দাবি করেন, ‘পুলিশ যোগাযোগ করেনি এমন কোনো কথা ভিডিওতে বলাই হয়নি!’
ওসি বলেন, সকালেও উনার সঙ্গে (সৌরভের বাবা) আমার কথা হয়েছে। আমি পুরো ভিডিও দেখেছি। তিনি কোথাও এমন কথা বলেননি।

সেই ভিডিও ফুটেজে কি আছেঃ

এক প্রশ্নের জবাবে ফেসবুক লাইভে সৌরভের বাবা সোহেল তাজের ইদ্রিস আলী বলেন, ‘উনাদের ফুটেজে দেখা যায় ৬টা কত মিনিটে আমার ছেলে আগোরার সুপার মার্কেটের পাশে দাঁড়িয়েছিল। কত মিনিটে তাদের (অপহরণকারীরা) লোক তার সঙ্গে যোগাযোগ করলো।’
সৌরভের বাবা মো. ইদ্রিস আলী সোহেল তাজকে আরও বলেন, ‘ফুটেজে দেখা গেছে একটি প্রাডো গাড়িতে পাঁচ-ছয়জন এসে ইফতেখারকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। ফুটেজ পরিষ্কার।

গাড়ি কার এবং ভেতরে কারা সেটা চেষ্টা করলেই শনাক্ত করা যাবে।’ এ সময় সোহেল তাজ ইদ্রিস আলীর কাছে জানতে চান, আপনার জানামতে সৌরভকে ৯ তারিখে (৯ জুন) কে ফোন করেছিল? উত্তরে ইদ্রিস আলী বলেন, ‘এই ফোনটা ঢাকা থেকে করা হয়েছিল। যারা ঢাকা থেকে রমজান মাসে আমার ছেলেকে বনানীর বাসা থেকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল।

পরে একদিন রেখে বনানীর বাসায় রাতে দিয়ে গিয়েছিল।’ সোহেল তাজ ইদ্রিস আলীর কাছে আবারও জানতে চান, ‘বনানীর বাসায় যারা তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল, তারা কী পরিচয় দিয়েছিল?’ উত্তরে ইদ্রিস আলী বলেন, ‘তারা র‍্যাব-১ এর পরিচয় দিয়েছিল। এ সময় একটি কাগজও দিয়েছিল আমাদের।’

লাইভে সোহেল তাজকে বলতে শোনা যায়, ‘আচ্ছা তার মানে মে মাসের ১৬ তারিখে সৌরভকে তুলে নিয়ে যায় ২৪ ঘণ্টার জন্য। ফিরিয়ে দেয়ার সময় একটি কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছিল। আর সেই কাগজটি র‍্যাব-১ এর প্রাপ্তিস্বীকার ফরম ছিল।’ জবাবে ইদ্রিস আলী বলেন, ‌‘উনারা (র‍্যাব-১) তখন বলেন, সে সম্পূর্ণভাবে নির্দোষ। তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ দেয়া হয়েছে সব ফেইক।’

প্রসঙ্গত, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ তার মামাতো বোনের ছেলে সৈয়দ ইফতেখার আলম (সৌরভ) অপহরণের অভিযোগ করেছেন। শুক্রবার রাত ১টায় নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে দেয়া এক পোস্টে তিনি এ অভিযোগ করেন। তিনি জানান, গত ৯ জুন চট্টগ্রামে চাকরির সিভি জমা দিতে গিয়ে নগরের মিমি মার্কেট এলাকা থেকে নিখোঁজ হন সৈয়দ ইফতেখার আলম ওরফে সৌরভ। সৌরভের পরিবার চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানাধীন সুন্নিয়া মাদরাসা এলাকার বাসিন্দা।

সৌরভ ব্র্যাক ও ইউনিসেফের জনসচেতনতামূলক শর্টফিল্ম বানাতেন। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট। তিনি ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির ছাত্র ছিলেন।

প্রসঙ্গত গত সোমবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান দাবি করেন, সওদা নামের এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

ঢাকা, ২০ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।