চুমু দিয়ে ড্যাফোডিল ভার্সিটি ছাত্রীকে চেকআপ চিকিৎসকের!


Published: 2019-06-17 18:55:21 BdST, Updated: 2019-08-22 22:25:31 BdST

ড্যাফোডিল লাইভঃ এবার চমক দেখালেন চিকিৎসক। সাধারণত এদেশে এমনটি হয় না। তাই ঘটালেন তিনি। চিকিৎসা সেবা নিতে আসা এক ছাত্রীকে চিকিৎসক নিজেই চুমু দিয়ে বিপদে পড়েছেন। শুরু হয়েছে তোলাপাড়। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশণাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রীকে চুমু দিয়ে মেডিকেল চেকআপের অভিযোগ উঠেছে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে।

রাজধানীর ধানমন্ডিতে পপুলার হাসপাতালের চিকিৎসক শওকত হায়দারের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ আনলেন ওই ছাত্রী। তবে ডা. শওকত বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। চলছে দেন দরবার।

জানা যায়, ব্রণের ইনফেকশন চেক করতে গিয়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ওই ছাত্রীর গালে চুমু খান চিকিৎসক এবং ইনজেকশন দেয়ার নাম করে বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন তিনি।

ওই ঘটনায় পপুলার হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ওই ছাত্রী। তিনি বলেন এটা কোন ধরনের চিকিৎসা সেটা বুঝে আসে না কারো।

জানা যায়, গত শনিবার (১৫ জুন) চর্ম ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ এবং লেজার কসমেটিক সার্জন ডা. মো. শওকত হায়দার কাছে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রী।

এসময় ব্রণের স্থায়ী সমাধানে ইনজেকশন দেয়ার কথা বলেন ডা. শওকত। এরপর ইনজেকশন দেয়ার নাম করে ছাত্রীর বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। এ রকম আচরণে দ্রুত ছাত্রীটি বের হওয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় আবার গালে ব্রণ ইনফেকশনের নাম করে ডা. শওকত হায়দার ওই ছাত্রীর গালে চুমু খান। বিষয়টি নিয়ে হাসপাতালে তোলপাড় চলছে। তাকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ
ক্ষণ আটকে রাখেন। এখনও সমাধান হয়নি।

ঢাকা, ১৭ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।