যৌন হয়রানি, আহসানউল্লাহর সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধে সাক্ষী আসছে না!


Published: 2019-03-14 12:35:56 BdST, Updated: 2019-03-26 18:56:33 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির সাবেক শিক্ষক মাহফুজুর রশীদ ফেরদৌসের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে আসছে না কেউ। সাক্ষীর অভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ হচ্ছে না। অভিযোগপত্রে ৫ ছাত্রীকে যৌন হয়রানির সুস্পষ্ট অভিযোগ থাকলেও সাক্ষীর অভাবে ওই শিক্ষক পার পেয়ে যেতে পারেন এমন ধারণা করা হচ্ছে। এর আগে গত ২০১৬ সালের ৩০ জুলাই নারী সাহায়তা ও তদন্ত বিভাগে কর্মরত পুলিশের এসআই আফরোজ আইরীন কলি আসামি মাহফুজুর রশিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, শিক্ষক মাহফুজুর রশীদ ফেরদৌস আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির পাঁচ ছাত্রীকে বিশেষ সম্পর্কের সুযোগে বিভিন্ন সময়ে ভয়ভীতি দেখানো ও প্রশ্নপত্র সাপ্লাই দিতেন। মৌখিক পরীক্ষায় বেশি নম্বর দেওয়ার কথা বলে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন।

অভিযোগপত্র আরও বলা হয়, এক ছাত্রীর সরলতার সুযোগ নিয়ে এবং বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে নিজ বাসায় নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন ফেরদৌস। ওই ছাত্রীর নগ্ন ছবি ওয়েবসাইট ও মোবাইলের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া এবং প্রশ্নপত্র ফাঁস করে দেওয়ার অভিযোগের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। ২০১৬ সালের ৪ মে রাতে কলাবাগান থানায় ফেরদৌসের বিরুদ্ধে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আসাদুল্লাহ আল সায়েম মামলাটি দায়ের করেন। যৌন হয়রানির অভিযোগে ওই শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

ওই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। রোববার (১০ মার্চ) সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। তবে ট্রাইব্যুনালে কোনও সাক্ষী হাজির না হওয়ায় রাষ্ট্রপক্ষ সময় চেয়ে আবেদন করেছে। এর প্রেক্ষিতে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক শরিফ উদ্দিন আগামী ৯ মে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন।

ঢাকা, ১৪ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।