জি বাংলায় ‘সারেগামাপা’ মাতিয়ে ভাইরাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকা


Published: 2018-09-16 21:15:44 BdST, Updated: 2018-12-13 20:26:40 BdST

শোবিজ লাইভ : জামালপুরের মেয়ে অবন্তী সিঁথি। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পেশায় আছেন তিনি। সঙ্গে চলছে সঙ্গীত চর্চাও। তবে তার এই সঙ্গীত অন্যদের মতো নয়, ব্যতিক্রম। অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী এই শিক্ষিকা বাদ্যযন্ত্রছাড়াই বাঁশি বাজাতে পারেন। গান গাওয়ার পাশাপাশি ব্যতিক্রমি উপস্থাপনা অবন্তীর মূল আকর্ষণ। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ‘কাপ সং’। কাপের তালে ইউটিউবে অবন্তীর বেশ কিছু গান জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বর্তমানে তিনি ইউটিউবে ‘ব্যালুন সং’ নিয়ে কাজ করছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, ব্যতিক্রমি আয়োজনে জি বাংলার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো সারেগামাপা মাতাচ্ছেন বাংলাদেশের এই শিক্ষিকা। তার এমন ব্যতিক্রমি প্রতিভা ইন্টারনেট দুনিয়ায় রীতিমতো ঝড় তুলেছে। ভাইরাল হয়ে রাতারাতি তারকা হয়েছেন দুই বাংলায়।

গত শনিবার রাতে ফেসবুকের ওয়ালজুড়ে এশিয়া কাপ ক্রিকেটে তামিম-মুশফিকদের বন্দনার পাশাপাশি প্রশংসায় ভেসেছেন অবন্তীও। ভারতের জি বাংলার জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো ‘সারেগামাপা’য় অংশ নিয়ে একেবারে চমকে দিলেন বাংলাদেশের এই শিক্ষিকা। কণ্ঠের জাদুর সঙ্গে হৃদয় কাঁপানো শিস আর গানের ভিন্ন রকম উপস্থাপনা দিয়ে তিনি বাজিমাত করেছেন। এপর্যায়ে তাকে দাঁড়িয়ে সম্মানও জানিয়েছেন প্রতিযোগিতার মূল বিচারক শ্রীকান্ত আচার্য, শান্তনু মৈত্র, কৌশিকী চক্রবর্তী, মোনালী ঠাকুর। তাদের সঙ্গে নিজেদের মুগ্ধতা প্রকাশ করেন অতিথি বিচারক পণ্ডিত তন্ময় বোস, রূপঙ্কর বাগচী, জয় সরকার ও শুভমিতাও।
শিস দেয়ার ধরনে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে বিচারক পণ্ডিত তন্ময় বোস অবন্তীকে ‘শিস প্রিয়া’ উপাধি দিয়েছেন।

জানা গেছে, অবন্তী সিঁথি জামালপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও দিগপাইত শামসুল হক ডিগ্রি কলেজে উচ্চমাধ্যমিক শেষ করেছেন। পরে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে রসায়নে অনার্স ও মাস্টার্স করেছেন। বর্তমানে তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবে যুক্ত আছেন। স্কুল কলেজ থেকেই তিনি গানের চর্চা করেন। জাতীয় পুরষ্কারও আছে তার ঝুলিতে। ২০০৩ ও ২০০৪ সালে লোকগান ও নজরুলসংগীত গেয়ে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন। ২০০৫ সালে ক্ল্যাসিক্যাল ও লোকসংগীত গেয়ে অর্জন করেন ‘ওস্তাদ আলাউদ্দিন খান স্বর্ণপদক’। ২০১২ সালে তিনি ‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতাতে অংশ নিয়ে সেরা ১০ জনের তালিকায় ছিলেন অবন্তী। পরবর্তীতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আনন্দন সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হন। সেখান থেকে নিয়মিত গান করতেন। এবার জি ওপার বাংলায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন এই শিক্ষিকা।


ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।