সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মণ্ডল নানান অপকর্মের দায়ে ধরা খেলেনখুলনা ছাত্রলীগ নেতা: পরকীয়া ও ময়না তদন্ত জালিয়াতির দায়ে বহিস্কার


Published: 2020-10-10 00:39:50 BdST, Updated: 2020-11-24 12:13:10 BdST

খুলনা লাইভ: পরকীয়া প্রেমে আসক্তিই কাল হলো ছাত্রলীগ নেতা সুরজিতের। এখানেই শেষ নয়। একটি হত্যা মামলার ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পরিবর্তন করার চেষ্টাও করেছিলেন তিনি। এসব অপরাধের কারণে খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মণ্ডল (২৫) কে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন অপরাধ ও অপকর্ম করে ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে চলছিল। বিষয়টি সকলের নজরে আসার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

খুলনা জেলা ছাত্রলীদের সভাপতি মো. পারভেজ হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সুরজিতকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি বটিয়াঘাটা উপজেলার তেঁতুলতলা এলাকার বাসিন্দা গোলক মণ্ডলের ছেলে।

জানা গেছে নানান অপকর্মের পর পিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হয়ে বর্তমানে তিনি খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছেন। খুলনা মহানগরীর আহসান আহমেদ রোডের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. হোসেন সাকের (৫৫) হত্যা মামলার তদন্ত পরিবর্তন করতে সে মোটা অঙ্কের আর্থিক লেনদেন করেছিল।

সেই অভিযোগে পিবিআই তাকে গ্রেপ্তার করে গতকাল আদালতে সোপর্দ করে। আদালতে সুরজিত মণ্ডল ১৬৪ ধারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এছাড়াও গত কয়েকদিন ধরে সুরজিত মণ্ডলের সঙ্গে এক প্রবাসীর স্ত্রীর অশ্লীল ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছিল।

বিষয়টি এলাকায় অলিতে গলিতে সমালোচনা শুরু হলে সকলের নজন কাড়ে। পরে ছাত্রলীগ নিশ্চত হয় ওই প্রবাসীর স্ত্রীর অশ্লীল ছবিসহ ভাইরালটি। তার পরে সেই নেতাকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত হয়।

এদিকে সাকের হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই খুলনা’র পুলিশ পরিদর্শক একেএম মাহফুজুল হক বলেন, মো. হোসেন সাকের হত্যাকাণ্ডের পর তার ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসামিদের পক্ষে নিতে মিডিয়া হিসেবে কাজ করেছে সুরজিত মণ্ডল।

তার সম্পৃক্ততার বিষয়ে তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। খুলনা জেলা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান মুন্না বলেন, নানারকমের সাংগঠনিক বহির্ভূত কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার দায়ে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

উপ-দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান মুন্না আরো জানান খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মণ্ডল ছাত্রলেগের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেন। খুন. ডাকাতি, চাঁদাবাজি, মাদক ও ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধ নিজেও করতো ও অন্যদের সহায়তা করতো অর্থের বিনিময়ে।

ঢাকা, ০৯ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।