ঢাবি: ‘’ছাত্র রাজনীতি নয়, দখলদারিত্ব ও সন্ত্রাসী রাজনীতি বন্ধের দাবি’’


Published: 2019-10-12 17:46:26 BdST, Updated: 2019-11-16 00:08:42 BdST

ঢাবি লাইভ: ছাত্র রাজনীতি নয়, দখলদারিত্ব ও সন্ত্রাসী রাজনীতি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন প্রগতিশীল ছাত্রজোট। শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে প্রগিতশীল ছাত্রজোট বুয়েটে সকল ধরনের রাজনীতি নিষিদ্ধের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।

এতে আবরার হত্যাকাণ্ডসহ বিভিন্ন সময়ে ঘটে যাওয়া সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যকর করা ও তার সাথে হলগুলোতে সন্ত্রাস, অস্ত্র, দখলদারিত্ব, টর্চার সেল ও গণরুম-গেস্টরুম নির্যাতন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন প্রগতিশীল ছাত্রজোট।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জোটের আহ্বায়ক ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদেরী। এতে তিনি বলেন, শুক্রবার (১১ অক্টোবর) বিকালে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের যে সিদ্ধান্ত হয় তাতে সব ধরনের বিরোধী সংগঠিত শক্তিকে দমন করা হবে।

অন্যদিকে, নিহত আবরার ফেসবুকে ভারত-বাংলাদেশ নিয়ে যে স্ট্যাটাস দিয়েছিল যেটি একটি রাজনৈতিক বিষয়,এই চুক্তির বিরোধিতা করা তার রাজনৈতিক অধিকার। কিন্তু রাজনীতি নিষিদ্ধ করার মধ্য দিয়ে প্রকারান্তে এই খুনের দায় চাপানো হল আবরারের রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে স্ট্যাটাস দেওয়ার ওপরেই।

এই নিষেধাজ্ঞার মধ্য দিয়েই রাষ্ট্র,বিশ্ববিদ্যালয় এবং সমাজ যেকোনও অন্যায়ের বিরুদ্ধে সংগঠিত প্রতিবাদ,যেকোনও রাজনৈতিক বিষয়ে বক্তব্য,মতামত দেওয়ার অধিকার দমন করার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার বুয়েট প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়া হলো।

তিনি বলেন, ক্যাম্পাসে দখলদারিত্ব এবং সন্ত্রাসের রাজনীতি করে ছাত্রলীগ। তাই সব সংগঠনের রাজনীতি বন্ধ না করে ছাত্রলীগের কর্তৃত্ববাদী রাজনীতি বন্ধ করা দরকার ছিল। ক্যাম্পাসগুলোতে যদি অপরাজনীতি বন্ধ করা না হয়, তাহলে রাজনীতি নিষিদ্ধের মধ্যে দিয়ে খুনি উৎপাদন বন্ধ হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের মাসুদ রানা,সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দীবিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ইকবাল কবীর প্রমুখ।

ঢাকা, ১২ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।