মাদকাসক্ত হলে ২৪ বার রক্ত দিলাম কিভাবে : ছাত্রলীগ সম্পাদক


Published: 2019-05-16 12:54:52 BdST, Updated: 2019-07-20 11:56:42 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : সদ্য ঘোষিত ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে বিতর্কের মাঝেই সমালোচনায় জড়িয়েছেন খোদ সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি নাকি মাদকাসক্ত। এ বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে। অবশেষে মুখ খুলেছেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক। বুধবার দিবাগত রাত ১২ টায় রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন করেছে ছাত্রলীগ।

এসময় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর বিরু‌দ্ধে মাদক সেব‌নের অভি‌যো‌গের বিষ‌য়ে জান‌তে চাই‌লে তি‌নি ব‌লেন, আমি ২৪ বার রক্ত দি‌য়ে‌ছি। মাদকাসক্ত হ‌লে রক্ত দি‌তে পারতাম না। আমার বিরু‌দ্ধে অপপ্রচার হ‌চ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনও উপস্থিত ছিলেন। একজন মেয়ের সঙ্গে শোভনের ছবি ভাইরাল হওয়া ও বিয়ে নিয়েও মুখ খুলেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, আমার কি কোন বান্ধবী থাকতে পারে না? ওই মেয়েটা আমার বান্ধবী। তবে এর বেশি কিছু আমি বলবো না। বিষয়টি নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, সভাপতি হওয়ার আগেও এই বিষয়টি নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তবে একদিন এই প্রশ্নের জবাব দিব। আজ এতটুক বলবো, উনি আমার বান্ধবী।

সংবাদ সম্মেলনে শোভন ও রাব্বানী বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সদ্য ঘোষিত ৩০১ সদস্য বিশিষ্ট ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে বিতর্কিতদের বাদ দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে পদবঞ্চিতদের কমিটিতে পদায়ন করা হবে। তবে পূর্ণাঙ্গ কমিটি বহাল থাকবে বলেও উল্লেখ করেন তারা।

গোলাম রাব্বানী বলেন, ছাত্রলীগের ঘোষিত কমিটির ১৭ জনের বিরুদ্ধে গঠণতন্ত্রবিরোধী অভিযোগ পাওয়া গেছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত করা কবে। যদি তারা অভিযোগ থেকে মুক্তি পান তাহলে তাদের পদ থাকবে। অন্যথায় তাদের পদগুলো শুণ্য ঘোষণা করে যোগ্যদের সেখানে স্থান দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, কমিটি গঠনে বিলম্ব হয়েছে, কারণ সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট- সেক্রেটারী আমাদের সহযোগিতা করেনি। যেটা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনে দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতারাও জানে।

ছাত্রলীগের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ যারা করেছে তাদের বহিষ্কার করা হবে জানিয়ে সভাপতি শোভন বলেন, ছাত্রলীগের কমিটি হওয়ার পর একটি মহল বিভিন্ন মাধ্যমে যে আক্রমণাত্মক ভাষায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে তা সংগঠনের শৃঙ্খলাপরিপন্থী। ক্ষোভ প্রকাশের জন্য দলীয় ফোরাম রয়েছে। যারা শৃঙ্খলাপরিপন্থী কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তাদেরকেও খুঁজে বের করে বহিস্কার করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ১৭ অভিযুক্তদের নাম ঘোষণা করেন গোলাম রব্বানী। এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। অভিযুক্ত এই ১৭ জন হলেন, তানজীল ভুইয়া তানভীর, আরেফিন সিদ্দিকি সুজন, সুরঞ্জন ঘোষ, আতিকুর রহমান খান, বরকত হোসেন হাওলাদার, শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ, মাহমুদুল হাসান তুষার, আমিনুল ইসলাম বুলবুল, আহসান হাবীব, সাদিক খান, তৌফিক হাসান সাগর, সোহানী হাসান তিথি, রুশি চৌধুরী, মুনমুন চৌধুরী, আফরিন লাবণী, মুনমুন নাহার বৈশাখী।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

ঢাকা, ১৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।