কোচিং সেন্টারে শিক্ষার্থীদের নেশা করিয়ে অশ্লীল ভিডিও প্রদর্শন!


Published: 2019-08-06 20:16:23 BdST, Updated: 2019-08-23 03:08:25 BdST

জামালপুর লাইভ: এবার কোচিং সেন্টারে শিক্ষার্থীদের নেশা করিয়ে অশ্লীল ভিডিও প্রদর্শনের অভিযোগ উঠেছে। ছাত্রীদের নেশাজাতীয় দ্রব্য মেশানো কোমল পানীয় পান করিয়ে এমন আপত্তিকর কাজ করা হয়েছে। এনিয়ে অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। জামালপুর শহরের মিয়াপাড়ায় নতুনকুঁড়ি কোচিং সেন্টারে এমন ঘটনা ঘটেছে।

ওই কোচিং সেন্টারের ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা জানান, ক্লাসের ইংরেজি শিক্ষক সরোয়ার হোসেন শিক্ষার্থীদের দিয়ে জোরপূর্বক কোমল পানীয় বাইরে থেকে ক্রয় করে আনতে বাধ্য করে। পরে এসব পানীয়ের সাথে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে তাদের খাওয়ানো হয়। না পান করায় কয়েকজনকে ডাস্টার দিয়ে মারধরও করা হয়েছে। পাশাপাশি ছাত্রদের প্যান্ট খুলে ছাত্রীদের কক্ষে দাঁড় করিয়ে রাখারও অভিযোগ উঠেছে। এদিকে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকদের চাপে কোচিং সেন্টার কর্তৃপক্ষ ইংরেজি শিক্ষক সরোয়ার হোসেনকে সোমবার সন্ধ্যায় চাকুরিচ্যুত করেছে।

শহরের মৃধাপাড়া এলাকার অভিভাবক রাজিয়া সালমা বলেন, আমার ছেলে আবির হোসাইন জয়কে কোমল পানীয়র সাথে নেশা জাতীয় পাউডার মিশিয়ে খাওয়ানো হয়। তিনি ওই শিক্ষকের বিচার চান।

ওই কোচিং সেন্টারের এক ছাত্র বলেন, সরোয়ার স্যার আমাদের ইউটিউবে পচা পচা ভিডিও দেখায়। জোর করে কোক নিয়ে যেতে বলে। কোক না নিয়ে গেলে বলে যে, লেংটা করে মেয়েদের লাইনে দাড় করিয়ে রাখবো। তারপর ডাস্টার দিয়ে আমাদের পেটায়।

কোচিং সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান জামান কল্লোল জানান, অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্তের পর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

জামালপুর সদর থানার ওসি মোঃ সালেমুজ্জামান জানান, অভিভাবকরা লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঢাকা, ০৬ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।