মহামারী থেকে বাঁচতে কুরআন ও হাদিসের আলোকে করণীয়


Published: 2021-08-03 21:43:37 BdST, Updated: 2021-09-19 10:16:12 BdST

মোঃ আমিনুল ইসলাম: শুধু টীকা দিয়ে করোনার মত মহামারী বিশ্ব থেকে নির্মূল করা সম্ভব হবে না। কারণ মহান আল্লাহ সবচেয়ে বড় কৌশলী। এটা টীকা দিয়ে নির্মূল করতে করতে করোনার আপডেট ভার্সন মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের মধ্যে পাঠাবেন।

দুইটা টীকা দিয়েও নিজেকে নিরাপদ ভাবার কোনো কারণ নেই। অনেক ডাবল টীকাধারীও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারাও গেছেন। আবার নতুন রোগ আসতেছে ব্লাক ফাংগাস। আপনি কয়টা ঠেকাবেন?

আমি টীকা বা চিকিৎসার বিরোধী না। কিন্তু আমাদের মূল সমস্যা আগে সনাক্ত করতে হবে নইলে পানির স্রোতের মত সমস্যা আসতেই থাকবে।

আল্লাহর সাথে যুদ্ধ করা মানে বোকামী। মহান আল্লাহর কাছে নতি স্বীকার করে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে যদি বিশ্বব্যাপি সবাই এক সাথে মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা পার্থনা করা হয় এবং নিজেদের সংশোধনের অংগীকার করা হয় তবে মহান আল্লাহ আমাদের হয়তোবা ক্ষমা করে আযাব থেকে রক্ষা করতে পারেন। এটা হয়তোবা সম্ভবও না। তবে (OIC) যেহেতু মুসলিম রাষ্ট্র সংঘ তাই তারা চাইলে হয়তো ব্যাপারটা নিয়ে ভাবতে পারেন। এটা রাষ্ট্রীয় ব্যাপার। তাই আমি আমার রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধানদের এ ব্যাপারে দৃষ্টিপাত করতে চাই। কারন আমার মত ক্ষুদ্র ব্যক্তির কথা মানা ত আর সম্ভব নয়। কিন্তু আমার কথা ত আর ফালতু না। আমি আমার কথার যৌক্তিক রেফারেন্স দিচ্ছি।

বিশ্বাস করা না করা আপনাদের ব্যাপার,তবে সবাই না মানলে ভালো-মন্দ সবাই যে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হবো এতে সন্দেহের কোনো অবকাশ নেই যা বর্তমান প্রেক্ষাপট থেকে বোঝা যাচ্ছে।

কুরআন ও হাদিসের আলোকে সামান্য রেফারেন্স দিলাম বোঝার সুবিধার জন্য।

মোঃ আমিনুল ইসলাম

 

কুরআনের আয়াতঃ

১.
(হে নাবী!) তুমি তাদের মধ্যে থাকা অবস্থায় তাদের কে শাস্তি দেওয়া আল্লাহর অভিপ্রায় নয়, আর আল্লাহ এটাও চাননা যে, তারা ক্ষমা প্রার্থনা করতে থাকবে অথচ তিনি তাদেরকে শাস্তি দিবেন।

(সুরা আনফাল -৩৩)

দুটি হাদিসের আলোকে ব্যাখ্যাঃ

১. রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ আল্লাহ আমার উম্মাতের জন্য নিরাপত্তার দুটি কারণ রেখেছেন। প্রথম হচ্ছে তাদের মধ্যে আমার উপস্থিতি। আর দ্বিতীয় হচ্ছে তাদের ক্ষমা প্রার্থনা। সুতরাং আমার দুনিয়া থেকে বিদায় গ্রহনের পরেও ক্ষমা প্রার্থনা কিয়ামাত পর্যন্ত লোকদেরকে আল্লাহ আযাব থেকে রক্ষা করতে থাকবে।' (তিরমিযী ৮/৪৭২)

২.
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ শাইতান বলেছিলো, হে আল্লাহ! আপনার মর্যাদার শপথ! যে পর্যন্ত আপনার বান্দাদের দেহে রুহ থাকবে সেই পর্যন্ত আমি তাদের কে বিভ্রান্ত করতে থাকবো। 'তখন আল্লাহ তা'য়ালা বলেনঃ আমার ইযযাতের শপথ! যে পর্যন্ত তারা ক্ষমা প্রার্থনা করতে থাকবে সেই পর্যন্ত আমিও তাদেরকে ক্ষমা করতে থাকবো।'
(আহম্মদ ৩/২৯)

সুত্রঃ তাফসীর ইবনে কাসীর একাদশ খন্ড পৃষ্টা নংঃ ৫৩৯, পারা ৯.

আল্লাহ হাফেজ

লেখক: মোঃ আমিনুল ইসলাম

ঢাকা, ০৩ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।