বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা নয় বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা ব্যস্ত বিসিএসে!


Published: 2018-05-15 01:22:32 BdST, Updated: 2018-07-22 06:45:56 BdST

নেসারুল হক : পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের একটি বড় অংশ তাদের স্বপ্ন পরিবর্তন করছেন পড়াশোনা শেষ করেই। গবেষণা কিংবা উচ্চশিক্ষার চিন্তা বাদ দিয়ে বিসিএস নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন তারা। পড়াশোনা শেষ করেই পরিবারের বোঝা টানতে হবে এই চিন্তায় বিজ্ঞানের অনেক শিক্ষার্থীকে তাদের নির্ধারিত ক্যারিয়ারের বাইরে গিয়ে অন্য চিন্তা করতে হচ্ছে। এদের একটি বড় অংশ ব্যস্ত হয়ে পড়ে বিসিএস নিয়ে। যে সময়টাতো তাদের গবেষণা নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা ছিল সেসময়ে তাদের দেখা যায় নদী, দেশ কিংবা মুদ্রার নাম মুখস্ত করতে। কিংবা কোন দেশে কি ঘটছে এই নিয়ে সময় কাটে তাদের। গবেষণার সময় কই তাদের। এভাবে প্রতিবছর বিজ্ঞানের ছাত্রদের একটি বড় অংশ অন্যপথে চলে যাচ্ছে। দেশের প্রচলিত শিক্ষাব্যবস্থা ও ক্যারিয়ার সিস্টেম এর জন্য দায়ি।

বিজ্ঞানের ছাত্রদের জন্য পর্যাপ্ত ও সময়োপযোগি চাকরির ব্যবস্থা নেই বাংলাদেশে। আর তাই যারা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হচ্ছে তাদের একটি অংশ দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। মানে মেধা পাচার হয়ে যাচ্ছে। আর বড় একটি অংশ বিসিএস নিয়ে পড়াশোনা করছে। তাদের স্বপ্ন পুলিশ অফিসার কিংবা পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় কিংবা শিক্ষকতা। অরেকটি অংশ কোনমতে একটি চাকরি যোগাতে পারলেই হলো এই মনোভাব নিয়ে ক্যারিয়ার গড়ে তুলেন।

এভাবে প্রতিবছর বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন বিজ্ঞানের ছাত্রের পেছনে হাজার হাজার টাকা ভর্তুকি দিয়েও সরকার তাদের কাজে লাগাতে পারছে না। গবেষক নয় বিসিএস ক্যাডার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে ক্যারিয়ার চয়েজ করেন বিজ্ঞানের ছাত্রদের একটি অংশ। এতে সময় ও অর্থ দুটোরই অপচয় হচ্ছে। যেই ছেলেটা বিজ্ঞানের জটিল সূত্র সমাধান করে মাথার চুল, নাকের পানি আর চোখের পানি এক করে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। সেই ছেলেটা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হওয়ার পর অন্য ছাত্রদের মতই বিসিএস নিয়ে ছুটছে। একসময় দেখা যায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা, রাষ্টবিজ্ঞান কিংবা ইতিহাসে পড়াশোনা করে আসা ছেলেটা ক্যাম্পাসে দাপটের সঙ্গে পলিটিক্স আর মাস্তি করে বের হয়ে বিসিএস ক্যাডার হয়ে বসে আছে। বিজ্ঞানের ছেলের সঙ্গে এই ছেলেটির পার্থক্য কোথায়? শুধু শুধু বিজ্ঞানের ছাত্রটির ক্যাম্পাস লাইফটা বরবাদ হয়েছে। তার লাইফে ছিল না কোন মাস্তি। শুধু পড়াশোনা আর পড়াশোনা। আর পাশ করে হয়েছেন বিসিএস ক্যাডার!

এভাবে চলতে দেয়া যায় না। জ্ঞানের ক্ষেত্র প্রসারিত করতে হবে। চাকরির বাজারে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন বাড়াতে হবে। বিসিএস ছাড়াও জীবনে উন্নতি করা যায় এটা বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের বুঝতে হবে। এ দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। বিদেশে মেধা পাচার না করে এদের দেশেই উন্নত কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

নেসারুল হক
শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা, ১৫ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।