ক্যাসিনো কানেকশন : থাইল্যান্ডগামী যাত্রীকে নামালো গোয়েন্দারা


Published: 2019-09-30 21:20:31 BdST, Updated: 2019-10-21 16:44:09 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ শেষ রক্ষা হলো। খরচ হলো অনেক টাকা। ঘাটে ঘাটে গুনেছেন অর্থ। তবুও রক্ষা হলো না। শেষমেষ ধরাশায়ী হলেন গোয়েন্দাদের চোখে। তাদের শ্যান দৃষ্টি ছিল তার গতিবিধির ওপর। অনলাইনে ক্যাসিনো পরিচালনার অভিযোগে অবশেষে ধরা খেলেন সেলিম প্রধান। তিনি একজন প্রভাবশালী নেতার খুব কাছের মানুষ। কিন্তু তিনি এখন জানিয়েছেন তাকে চেনেন না। তার সঙ্গে নেই পরিচয়।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান থেকে এক বিমানযাত্রীকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একটি ইউনিট। থাই এয়ারওয়েজের ব্যাংককগামী একটি ফ্লাইট থেকে সেলিম প্রধান নামের ওই যাত্রীকে আটক করা হয়। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ বলে জানা গেছে।

জানাগেছে ওই যাত্রী ইমিগ্রেশনের যাবতীয় ফর্মালেটি সম্পন্ন করে ফ্লাইটে উঠে যান।েএদিকে গোয়েন্দারা তার গতিবিধি লক্ষ্য রাখছিলেন। সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে ব্যাংককের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার কথা ছিল। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি ইউনিট ফ্লাইটে হাজির হলে ফ্লাইট ছাড়তে ৩টা বেজে যায়।

সূত্র জানায়, থাই এয়ারওয়েজের টিজি-৩২২ নম্বর ফ্লাইটটি ছাড়ার আগ মুহূর্তে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একদল সদস্য বিজনেস ক্লাসের ওই যাত্রীকে নামিয়ে নিয়ে যায়। আটক সেলিম প্রধানের কোনো রাজনৈতিক পরিচয় আছে কি না এ বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে সংশ্লিস্ট অনেকেই বলেছেন সেলিট অনলাইনে ক্যাসিনোর যাবতীয় কাজ করতেন। তিনি কোটি কোটি টাকা পাচার করেছেন থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে।

এদিকে র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আটক ব্যক্তি অনলাইন ক্যাসিনো/জুয়ার সঙ্গে জড়িত। তিনি অনলাইনে ক্যাসিনোর অর্জিত আয় বিদেশে পাচার করে আসছিলেন। জিজ্ঞাসাদের ভিত্তিতে পরে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবে র‌্যাব।

সূত্র জানায় তাকে র‌্যাব জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। তাকে নিয়ে র‌্যাবের একটি দল রাজধানীর বিভিন্ আস্তানায় অভিযান চালাবে বলেও তথ্য মিলেছে।

ঢাকা, ৩০ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।