অর্থমন্ত্রী হচ্ছেন আহম মুস্তফা কামাল, ফোন পেয়েছেন যারা


Published: 2019-01-06 16:07:57 BdST, Updated: 2019-01-21 00:07:58 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: নতুন মন্ত্রিসভায় পুরনোদের বেশির ভাগই রাখা হচ্ছে না। ৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভায় অধিকাংশই হচ্ছেন নতুন মুখ। নতুন মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রী হয়েছেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি আগে পরিকল্পনামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

নতুন মন্ত্রিসভার আকার হচ্ছে ৪৬ সদস্য বিশিষ্ট। এর মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী হচ্ছেন ৩ জন। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

এমনকি হেভিওয়েট মন্ত্রীরাও বাদ যাচ্ছেন। এছাড়া আওয়ামী লীগের বাইরে মহাজোটের অন্য কোনো দলের কাউকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে না নতুন মন্ত্রিসভায়।

রবিবার দুপুর থেকে শপথ নেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তারা ফোন করছেন সংশ্লিষ্টদের। গণভবন থেকে দুপুর দেড়টার দিকে তালিকা নিয়ে সচিবালয়ে ফেরেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, নতুন মন্ত্রিসভায় আকার হচ্ছে ৪৬ সদস্য বিশিষ্ট। এর মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী হচ্ছেন তিনজন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ফোন পেয়েছেন যারা:
বর্তমান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উ শৈ শিং, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য দীপু মনি, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গাজী গোলাম দস্তগীর, টাঙ্গাইল-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, বর্তমান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, চট্টগ্রাম-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাছান মাহমুদ।

এছাড়া চট্টগ্রাম-৯ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, রংপুরের সংসদ সদস্য টিপু মুন্সি, বর্তমান ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান জাবেদ, বর্তমান তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, বিদ্যৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, বর্তমান কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, দিনাজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম এনামুল হক শামীম শপথ নিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ফোন পেয়েছেন।

টেকনোক্র্যাট কোটায় শপথ নেয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছেন মোস্তাফা জব্বারও।

তবে মন্ত্রিসভার সদস্যদের সংখ্যার কমপক্ষে দশভাগের ৯ ভাগ সংসদ-সদস্যদের মধ্য থেকে নিয়োগ পাবেন। সর্বোচ্চ দশভাগের এক ভাগ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের মধ্য থেকে মন্ত্রিসভার সদস্য মনোনীত (টেকনোক্র্যাট) হতে পারবেন বলে সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি বঙ্গভবনে প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর শপথ পড়াবেন। এরপর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন রাষ্ট্রপতি। শপথের পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে দফতর বণ্টন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলে তারাই হবে দেশের নতুন সরকার। শপথ নেয়া পর্যন্ত আগের মন্ত্রিসভা বহাল থাকবে। নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলে আগের মন্ত্রিসভা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হয়ে যাবে।

 

 

 

ঢাকা, ০৬ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।