৪১তম বিশেষ বিসিএসে শিক্ষক নিয়োগ!


Published: 2018-08-12 17:05:37 BdST, Updated: 2018-11-21 12:39:03 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: সরকারি কলেজে বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে দুই হাজার শিক্ষক নিয়োগে জনপ্রশাসনে চাহিদা পাঠানো হয়েছে। ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ দিতে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশে বর্তমানে কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট, শিক্ষক প্রশিক্ষণ কলেজ, আলিয়া মাদরাসাসহ ৩২৯টি সরকারি কলেজ রয়েছে। এসব কলেজে প্রিন্সিপালের পদ রয়েছে ৫০৭টি, অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর দুই হাজার ২২১টি, অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর চার হাজার ২৮৪টি এবং লেকচারার পদে আট হাজার ২৬টি পদ রয়েছে। দেশে সরকারি কলেজে নিয়োগের জন্য পিএসসির মাধ্যমে যে সংখ্যক সুপারিশ করা হয় তা পর্যাপ্ত নয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব সোহরাব হোসাইন জানান, সরকারি কলেজ শিক্ষক সংকট নিরসনে বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ ছাড়া আর কোনো সহজ রাস্তা নেই। আমরা এ বিষয়ে একাধিক বৈঠক করেছি। সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নিয়েছে। সবাই একমত হয়েছে। তার ভিত্তিতে জনপ্রশাসনে ২ হাজার লেকচারার নিয়োগে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। দ্রুতই এটি পিএসসিতে পাঠানো হবে।

তিনি বলেন, প্রতি বছর সাধারণ বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে সরকারি কলেজে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। এই মোতাবেক ৩৬তম বিসিএস থেকে শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশ করা গেজেটভুক্ত ৯৩৭ শিক্ষক ৩ সেপ্টেম্বর দেশের বিভিন্ন কলেজে যোগদান করবে। ৩৭তম বিসিএস থেকে ২২৪ এবং ৩৮তম বিসিএস থেকে ৯৯২ শিক্ষক নিয়োগে পিএসসিতে চাহিদা দেয়া হয়েছে।

মাউশি পরিচালক প্রফেসর মোহাম্মদ শামছুল হুদা জানান, দীর্ঘদিন ধরে দেশের অনেক সরকারি কলেজে লেকচারার পদে শিক্ষক সঙ্কট নিরসন করা সম্ভব হচ্ছে না। এ কারণে শিক্ষা ক্যাডারে বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এবিষয়ে তিনি আরো জানান, পিএসসির আয়োজিত সাধারণ বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে যে সংখ্যক শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশ আসে তাদের নিয়োগ দিয়ে এ সমস্যা দূরীকরণ সম্ভব হচ্ছে না। এখনও অনেক কলেজে বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক নিয়োগ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। পার্শ্ববর্তী কলেজের শিক্ষক ধার করে এনেই ক্লাস নিতে হচ্ছে।

এবিষয়ে পিএসসির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, সরকারি কলেজ উচ্চশিক্ষার প্রাণকেন্দ্র হলেও সেখানে চরম শিক্ষক সংকট রয়েছে। বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমেই এ সংকট নিরসন করা সম্ভব হবে।

সিদ্ধান্তের বিষয়ে তিনি আরো জানান, শিক্ষা ক্যাডারের জন্য বিশেষ বিসিএস পরীক্ষা আয়োজনের জন্য অফিসিয়াল আবেদন এখনও আমাদের হাতে এসে পৌঁছেনি। পেলে আইন পরিবর্তনসহ এ বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করা হবে।

৩৯তম বিশেষ বিসিএস পরীক্ষা শেষ হয়েছে। বর্তমানে ফলাফল প্রকাশের কাজ শুরু হয়েছে। ৪০তম বিসিএস পরীক্ষার চাহিদা ক্যাডার পদের চাহিদা পাওয়া গেছে। আগামী সেপ্টেম্বর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হতে পারে। এ সময়ের মধ্যে শিক্ষা ক্যাডারে বিশেষ বিসিএসের আইন সংশোধন হলে ৪১তম বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করা হতে পারে।

 


ঢাকা, ১২ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।