বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সংসদ সদস্যের সাহায্য আবেদন


Published: 2018-01-06 15:18:48 BdST, Updated: 2018-06-24 16:59:09 BdST


লাইভ প্রতিবেদক: দীর্ঘদিন ধরে চলাফেরায় অক্ষম ও জঠিল রোগে আক্রান্ত হয়ে ধুকে ধুকে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এই লোকটি কে? জানেন? জানলে অবাগ হওয়ারই কথা। তিনি আর কেই নন, তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফ।

সততা আর বিশ্বাসের সবটুকুই জাতির কল্যাণে উৎসর্গ করে দিয়েছেন তিনি। রাঙ্গুনীয়া বাসীর নয়নের মনি, বাংলার অহংকার, কারণ সংসদ সদস্য থাকাকালীন কী না করতে পারতেন তিনি? সম্পদের পাহাড় গড়াও সম্ভব ছিল তার জন্য। কিন্তু তা তিনি করেননি।

আজ সাধারণ মানুষ বুঝতে শিখেছে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য কিম্বা মন্ত্রী হওয়াটা নিজের জন্য নয়, অসহায়, হতদরিদ্র মানুষগুলোর কল্যানে নিজেকে অকাতরে বিলিয়ে দেওয়ার নাম আওয়ামী লীগ। একথার জ্বলন্ত প্রমাণ বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফ।

কিন্তু তাই বলে কি এভাবেই ধুকে ধুকে চিকিৎসা অভাবে মারা যাবে বাংলার অহংকার। না প্রধানমন্ত্রী, মানবতার "মা" এভাবে সততা আর বিশ্বাসের অমর্যাদা হতে দেওয়া যায় না। দোহায় আপনার একটু নজারে আনেন লোকার প্রতি। সাবেক সংসদ সদস্য কিম্বা বীর মুক্তিযোদ্ধার হিসেব না হয় বাদই দিলাম, একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে তো সুচিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আছে তার তাই নয় কি? ঠিক এভাবেই কান্নায় আবেগ প্রবণ হয়ে কথা গুলো বলেছেন মোহাম্মদ ইউসুফ এর স্বজনরা।

রাঙ্গুনীয়া থেকে নৌকা প্রতিক নিয়ে ১৯৯১ সালে নৌকার বিজয় এনে দিয়েছিলেন মোহাম্মদ ইউসুফ। নৌকার ছায়াতলে থেকে নির্বাচিত হয়ে অনেকেই চরম দু:সময়ে জোট সরকারের হালুয়া রুটি খেতে আপনাকে ও আওয়ামীলীলীগকে ছেড়ে চলে গেলেও নির্লোভ এই মানুষটি আপনার বিশ্বাসের অমর্যদা করেননি। করেননি নৌকার অমর্যদা। দূর্নীত, স্বজন প্রীতি, অহংকার যাকে স্পর্শ করতে পারেননি, তিনি রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়ম নগরে নিন্ম মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম গ্রহন করা এই বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউসুফ।


জন্মিলে মরিতে হয় তাতে কোন সন্দেহ নেই। ইউসুফ ভাই, আমি, আপনি সবাই মরা যাব। দু:খটা অন্য জায়গায় নেত্রী, সাবেক এই এমপি কে যখন মানুষ দেখে, তখন সবাই আপসোস করে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারিত ভবন, জাতিয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব করা এই মানুষটির যদি এই পরিনতি হয় তাইলে সাধারণ নেতা কর্মীর অবস্থা কি হতে পারে?
এই কি সততার পুরস্কার?

সংসদ সদস্য বাদ দিলে ও একজন দেশ প্রেমিক মুক্তিযোদ্ধার এই করুণ পরিনতি কি আগামী রাজনীতিকে নিরুৎসাহীত করবে না? অর্থ ও চিকিৎসার অভাবে ক্রমাগত মৃত্যুর দিকে এগুচ্ছে এক সময়ের সাহসী এই মানুষটি।

আপনি বাংলাদেশের রাজনীতিতে বিশ্ব মানবতার আইডল। তিনি বাঁচুক, বা মরুক সবই সৃষ্টিকর্তার কৃপা। তাকে অন্তত দেশের বাইরে নিয়ে গিয়ে রাষ্ট্রীয় ভাবে তার চিকিৎসার শেষ চেষ্টা করা হউক। তাহলে অন্তত রাজনীতির ইজ্জত বাচঁবে। আপনার সুস্থতা কামনা করছি। আপনি আমাদের জন্যে সুস্থ থাকুন সর্বক্ষণ, সর্বদা। জয়বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

 

ঢাকা, ৬ জানুয়ারী (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।