করোনায় মেডিসিন ক্লাব রক্ত, খাদ্য, ত্রাণ ও পরিবহন সুবিধা দিচ্ছে


Published: 2020-05-16 21:31:28 BdST, Updated: 2020-06-03 05:09:51 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: ওরা মানবিক। ওরা মানুষের জন্যে কিছু করতে চায়। আপদে-বিপদে পাশে থাকতে চায় গরীব ও অসহায়দের । মরণঘাতি করোনায় ছোবলে সকল কিছু লন্ড ভন্ড। করোনায় বিপর্যস্ত জনজীবন। প্রতিদিনই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে হাজারো মানুষ। সংক্রমিত হচ্ছে লাখো মানুষ।

ভয়ংকর এ পরিস্থিতিতে সামনে থেকে লড়াই করছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। তারাও আক্রান্ত হচ্ছেন। মারা যাচ্ছেন। তবুও থেমে নেই মানুষ বাঁচানোর এই মানবিক লড়াই। সরাক্ষণ তারা লেগেই আছেন।

আর মানবিক এ লড়াইয়ে এগিয়ে এসেছেন মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের শিক্ষার্থীরা। হবু এই চিকিৎসকরা করোনাকালে নিজেদের সাধ্যমতো চেষ্টা করছেন। তারা নিজেদের সংগঠন মেডিসিন ক্লাবের মাধ্যমে অসহায় দুস্থদের সহযেগিতা করছেন।

তেমনি অগ্রজদের পাশেও দাঁড়াচ্ছেন। করোনা চিকিৎসায় নিয়োজিতদের পরিবহন সেবা দিচ্ছেন। বিতরণ করছে সুরক্ষা সামগ্রী। অন্য রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা দিচ্ছেন। মুমূর্ষু রোগীদের জন্য সংগ্রহ করছেন জীবন রক্ষার প্রয়োজনীয় রক্ত। এসবই কেবল মানব প্রেম থেকে।

জানাগেছে ১৯৮১ সালের ৩১ জানুয়ারি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মেধাবী তরুণদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা পায় মেডিসিন ক্লাব। ধীরে ধীরে সারাদেশের সব মেডিকেল প্রতিষ্ঠানে এই ক্লাবের কার্যক্রম শুরু হয়।

ক্লাবের সেবামূলক কর্মকাণ্ডে অংশ নিয়ে শিক্ষাজীবনের শুরু থেকেই মানবিক কাজে সম্পৃক্ত হন তারা। এ বিষয়ে মেডিসিন ক্লাবের কেন্দ্রীয় সভাপতি আরমান হোসেন জানান, এই দুর্যোগে তারা বসে নেই।

দেশব্যাপী বিভিন্ন শাখার মাধ্যমে বেশ কিছু কর্মসূচি পালন করেছেন। আরমান হোসেন জানান, তারা দেশের ২৮ জেলায় চিকিৎসকদের মাঝে ৭০০ ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) বিতরণ করেছেন।

তাদের এই উদ্যোগে সহযোগিতা করেছে কোরিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে করোনা নিয়ন্ত্রণ কক্ষের মাধ্যমে টেলিমেডিসিন সেবা প্রদান করছেন মেডিসিন ক্লাবের সদস্যরা। দেশব্যাপী প্রায় দেড় হাজার পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে ওই ক্লাবের সদস্যরা মূমূর্ষু রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় রক্তের জোগান দিচ্ছে মেডিসিন ক্লাব। গত দুই মাসে ৩০টি শাখার মাধ্যমে প্রায় ৩০০ ব্যাগ রক্তের সংগ্রহ করা হয়েছে।

বিশেষ করে থ্যালাসেমিয়া রোগীদের নিয়মিত রক্ত সঞ্চালনের প্রক্রিয়া করোনার কারণে যাতে বাধাগ্রস্ত না হয়, সেই প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা হয়েছে।

মেডিসিন ক্লাব সবচেয়ে ভালো যে কাজটা করছে তা হলো রাজধানীর কারোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোতে দায়িত্ব পালনরত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বিনামূল্যে বিশেষ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত পরিবহনে তাদের গন্তব্যে পৌঁছে দিচ্ছেন।

মেডিসিন ক্লাবের উদ্যোগে এই কাজে প্রত্যক্ষ সহায়তা করছে বাংলাদেশ ডক্টরস ফাউন্ডেশন ও পার্ক লাইন ট্রাভেলস। যাত্রাবাড়ী, সায়েদাবাদ, মতিঝিল, রামপুরা, উত্তরা, আব্দুল্লাহপুর, মিরপুর, ধানমন্ডি. শ্যামলী থেকে চিকিৎসকদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

এছাড়া ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মহানগর হাসপাতাল, কুয়েতমৈত্রী হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে চিকিৎসকদের আনা-নেওয়ার জন্য পরিবহন সেবা দেওয়া হচ্ছে।

একই ভাবে তারা শুরু থেকেই জনসচেতনতা সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছেন। এ ছাড়া স্বাস্থ্যবিষয়ক লাইভ অনুষ্ঠান লাইভ ফ্রম মেডিসিন ক্লাব হাউস সরাসরি সম্প্রচারিত হচ্ছে নিজেদের ফেসবুক পেজে। দুর্যোগে লেখাপড়ায় যাতে ব্যাঘাত না ঘটে সেজন্য একাডেমিক উইংয়ের অংশ হিসেবে অনলাইন ক্লিনিক্যাল ও প্রি-ক্লিনিক্যাল ক্লাসের আয়োজন করছে মেডিসিন ক্লাব।

মেডিসিন ক্লাবের উদ্যোগের প্রশংসা করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা মঙ্গলবারের স্বাস্থ্য বুলেটিনে বলেন, করোনা মোকাবিলায় মেডিসিন ক্লাব ইতোমধ্যে অনেক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

রাজধানীতে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোতে কর্মরত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য বিনামূল্যে পরিবহন ব্যবস্থা চালু করেছে। তারা ত্রাণ দিচ্ছে। রক্ত সংগ্রহ করছে। তিনি বলেন আমি এধরনের সংগঠনের সকল সদস্যদের সাধুবাদ ও ধন্যবাদ জানাই।

ঢাকা, ১৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।