জমে উঠেছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা


Published: 2020-02-10 04:12:43 BdST, Updated: 2020-08-07 15:25:51 BdST

মো.মনিরুজ্জামান; ঢাবিঃ পাঠকের পদচারণায় যেমন জমজমাট, তেমনি সাহিত্যিক শিল্পীদের আনাগোনাও বইমেলাকে করে তুলেছে প্রাণবন্ত। প্রতিদিন আসছে নতুন নতুন বই, সমাগম বাড়ছে নতুন লেখকদের, সব মিলিয়ে বইমেলা এখন জমে উঠেছে।

ঢাকা অমর একুশে গ্রন্থমেলা এখন জমে উঠেছে। মেলার নবম দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণা ছিল চোখে পড়ার মত। দুপুর তিনটায় গ্রন্থমেলার দ্বার উন্মোচন হওয়ার পর থেকে বাড়তে থাকে ক্রেতা সমাগম।

বইপ্রেমী পাঠক, লেখক, দর্শনার্থীর সমাগম প্রতিদিনই বাড়ছে। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামার আগেই ভিড় বাড়ছে বইপ্রেমীদের। কেউ বই কিনছেন কেউবা ঘুরে দেখছেন বইয়ের স্টল , কেউবা বই হাতে সেলফি তুলছেন।

দর্শনার্থীদের বেশিরভাগই আসছেন দল বেঁধে। কেউ কেউ বন্ধু-বান্ধব আবার কেউ পরিবার-পরিজন বা প্রিয় মানুষকে নিয়ে। শিশু-কিশোররা এসেছে তাদের মা-বাবার সঙ্গে। সব মিলিয়ে জমে উঠেছে প্রাণের মেলা, বইমেলা।

অমর একুশে গ্রন্থমেলার ৮ম দিনে নতুন বই এসেছে ১১৬টি। বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় মিল্টন বিশ্বাস রচিত উপন্যাসে বঙ্গবন্ধু শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রশান্ত মৃধা। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন পাপড়ি রহমান ও মোজাফ্ফর হোসেন। লেখকের বক্তব্য প্রদান করেন মিল্টন বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আনোয়ারা সৈয়দ হক। সন্ধ্যায় ছিল কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, আবৃত্তি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আজ 'লেখক বলছি' অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন পারভেজ হোসেন, ওবায়েদ আকাশ, মোস্তফা হোসেইন এবং খায়রুল বাবুই।

ছেলে-মেয়েকে নিয়ে বইমেলায় এসেছেন রফিকুল ইসলাম। তিনি ক্যাম্পাস লাইভকে বলেন, এবারে কাজের চাপে এতদিন বইমেলায় আসা হয়নি। প্রতিদিনই ইচ্ছা করে বইমেলায় আসতে। তাই আজ সময় করে ছেলেমেয়েদের নিয়ে বইমেলায় আসা। নিজেও বই কিনলাম, ছেলে-মেয়েদেরও কিনে দিলাম।

বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে বইমেলায় এসেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আব্দুল কাইয়ুম। বইমেলা নিয়ে তিনি জানায়, আমি যেহেতু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তাই বই মেলা পাশে হওয়ায় আমি প্রায় প্রতিদিন বইমেলায় আসি। আমি নতুন নতুন গল্প পড়তে পছন্দ করি। তাই মেলায় এসে অনেক গল্পের বই কিনি। আজ তিনটি বই কিনেছি। আগামী সপ্তাহে আরও কিছু বই কিনবো।

নন্দন প্রকাশনের এক বিক্রেতা বলেন, গতবারের তুলনায় এবারের আয়োজন অনেক ভালো। মানুষের উপস্থিতিও আছে। মোটামুটি বেচাকেনা হচ্ছে। আশা করি শেষের দিকে আবার জমে উঠবে মেলা। তখন বিক্রিও বাড়বে।

বাংলা একাডেমি প্রকাশনায় কর্মরত সেলিম হোসেন বলেন, বই ভালোই বিক্রি হচ্ছে। ধিরে ধিরে ক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গ্রন্থমেলায় কি ধরণের বই বেশি বিক্রি হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এবারে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বই বেশি বিক্রি হচ্ছে।

ঢাকা, ০৯ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।