প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া ইবিতে চাঁদাবাজি


Published: 2017-04-16 21:20:20 BdST, Updated: 2020-09-18 12:25:13 BdST


ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া বৈশাখি মেলায় দোকান দিতে আসা ক্ষুদ্র ব্যবসায়িদের নিকট থেকে চাঁদা তুলেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে এস্টেট অফিসের পরিচালক মো: হারুন অর রশিদ ও একই অফিসের নিম্মমান সহকারী মো: আজিজুল হক এ চাঁদা উঠিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে দোকান দিতে আসা ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ীরা অভিযোগ করেন তাদের কাছ থেকে ছোট পরিসর ১০০, ২০০ টাকা থেকে শুরু করে বৃহৎ পরিসর ৫০০, ৭০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা নেওয়া হয়েছে।

মেলা ঘুরে দেখা যায় দোকানিদের মধ্যে ছিলেন বাদাম, বেলুন, শসা, খেলনা ও পানি বিক্রেতা। তাদের মধ্যে বাদাম বিক্রেতা ইমদাদুল হকের কাছ থেকে ৭০০ টাকা, মারেফত এর কাছ থেকে ২০০, শরিফুল এর কাছ থেকে ৫০০ টাকা, বেলুন বিক্রেতা জহির রাইহান এর কাছ থেকে ৩০০ টাকা, খেলনা বিক্রেতা জাহাঙ্গীর আলম এর কাছ থেকে ১০০ টাকা চাঁদাবাজী করে বলে দোকানদাররা অভিযোগ করেন।

অভিযোগকারীর মধ্যে জাহাঙ্গীর আলম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমার সব জিনিস বিক্রি করে হয়তবা ১০০ থেকে ১৫০ টাকা আয় হবে। আর যদি ১০০ টাকা চাঁদা দিতে হয় তাহলে মেলায় দোকান দিয়ে আর লাভ কী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ন্যায্য বিচার দাবি করেছেন।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার এস এম আব্দুল লতিফ বলেন, প্রশাসনের অনুমতির বাহিরে কিছু করলে সেটি অন্যায় হবে। প্রয়োজনে এটি ভিসির নজরে আনা হবে।

অভিযুক্ত আজিজুল হকের সাথে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এস্টেট অফিসের পরিচালক মো: হারুন অর রশিদ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন“ কিছু লোক আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।’

 

ঢাকা, ১৬ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।