ফের কর্মবিরতিতে ইবি কর্মকর্তা সমিতি, একাংশের নতুন কমিটি


Published: 2020-02-11 03:41:30 BdST, Updated: 2020-04-02 05:03:51 BdST

ইবি লাইভঃ ফের কর্মবিরতিতে নেমেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) কর্মকর্তা সমিতি। সোমবার ১৩ দফা দাবিতে কর্মবিরতি শুরু করে তারা। দাবি আদায়ে লাগাতার কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে সমিতির নেতৃবৃন্দ। এদিকে অফিসার্স এসোসিয়েশন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় নামে নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে কর্মকর্তাদের একাংশ।

আন্দোলনরত কর্মকর্তাদের দাবি, অফিস সময় ৯টা থেকে সাড়ে ৪ টার পরিবর্তে সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ২টা, চাকরি অবসরের বয়সসীমা ৬০ থেকে ৬২ বছরে উন্নীতকরণ, উপ-রেজিস্ট্রার ও সমমানের কর্মকর্তাদের বেতন চতুর্থ গ্রেড এবং সহকারী রেজিস্ট্রার ও সমমানের কর্মকর্তাদের বেতন ষষ্ঠ গ্রেড।

শাখা কর্মকর্তা হতে উপ-রেজিস্ট্রার পদে পদোন্নতির ক্ষেত্রে মোট চাকুরিকাল ১০ বছর, দপ্তর প্রধান পদে স্থায়ী ভিত্তিতে অনতিবিলম্বে নিয়োগের ব্যবস্থা, বিধি মোতাবেক অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার বা সমমান পদে নিয়োগ, বিশ্ববিদ্যালয় কল্যাণ তহবিলের অর্থ প্রচলিত ৩টি বেতন ভাতার পরিবর্তে ১৫টি বেতন ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা।

চিকিৎসা কেন্দ্রে কর্মরত সিনিয়র টেকনিক্যাল অফিসারদের ডেপিুটি চীফ টেকনিক্যাল অফিসার পদে পদোন্নতি ও আপগ্রেডিং এর ব্যবস্থা, পদোন্নতিপ্রাপ্ত সাত কর্মকর্তাকে প্রাপ্তির তারিখ থেকে প্রাপ্ত সুবিধা প্রদান, শিক্ষা জীবনের সকল পর্যায়ে দ্বিতীয় বিভাগ বা শ্রেণী প্রাপ্ত কর্মকতাদের সার্বজনীন রেয়াত হতে বিশেষ সুবিধা প্রাপ্ত কর্মকতাদের ছয় মাসের রেয়াত কর্তন না করা।

পদোন্নতি প্রাপ্ত আট কর্মকর্তাকে প্রাপ্তির তারিখ থেকে প্রাপ্ত সুবিধা প্রদান, সৃষ্টিকৃত সিনিয়র পেশ ইমাম পদটি চূড়ান্ত অর্গানোগ্রামে অন্তর্ভূক্ত করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের পোষ্য কোঠায় ভর্তির ক্ষেত্রে নূন্যতম যোগ্যতা থাকলেই ভর্তির ব্যবস্থা করার দাবি জানায় কর্মকর্তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর থেকে তিন দফা দাবিতে আন্দোলনে নামে বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতি। পরে ২০১৯ সাালের বিভিন্ন সময়ে আন্দোলন চালিয়ে যায় তারা। তবে প্রশাসনের আশ্বাসে আন্দোলন তুলে নেয় কর্মকর্তা সমিতি। কিন্তু দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ায় সোমবার পুণরায় আন্দোলনে নামে তারা।

এ বিষয়ে কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি শামসুল ইসলাম জোহা বলেন,‘দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবে কর্মকর্তা সমিতি।’

এদিকে আলমগীর হোসেন খানকে আহবায়ক করে এবং আব্দুল হান্নানকে সদস্য সচিব করে মোট ১৫ সদস্যদের নতুন কমিটি গঠন করেছে কর্মকর্তাদের একাংশ। সোমবার বেলা তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসকর্ণারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ কমিটির আত্মপ্রকাশ করেন কমিটির নেতৃবৃন্দ।

এসময় তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্সদের স্বার্থ সংরক্ষণ, সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক এবং সম্মান পূনরুদ্ধার ও যৌক্তিক দাবিদাওয়া বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমরা এ কমিটি গঠন করেছি। আমরা আন্দোলনরত কর্মকর্তাদের যৌক্তিক দাবির সাথে দ্বিমত নই, তবে আন্দোলন প্রক্রিয়ার সাথে দ্বিমত রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের যেকোন দাবি শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে যথাযথ কর্মসূচীর মাধ্যমে অগ্রসর হওয়া উচিত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান বলেন, ‘কর্মকর্তাদের আন্দোলন দীর্ঘ দিনের। তাদের দাবিগুলো বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সাথে সাংঘর্ষিক না হলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অবশ্যই মেনে নেবে।’

ঢাকা, ১০ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।