ইবি শিক্ষক: ভারতীয় লেখকের বই প্রকাশে বিস্ময়!


Published: 2019-11-16 22:15:07 BdST, Updated: 2019-12-13 09:44:59 BdST

ইবি লাইভ: বিস্ময়! হতভম্ব! ভারতের লেখক সুধাংশু রঞ্জন ঘোষের একটি বই প্রকাশ নিয়ে তোলপাড় চলছে। নানান সমালোচনাও চলছে দেশ বিদেশে। জানাগেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক শিক্ষকের নামে ঢাকা থেকে ওই বই প্রকাশ করা হয়েছে। ইবির বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর রহমানকে নিয়ে এই কাণ্ড ঘটে গেছে। এ নিয়ে দুই দেশের লেখক-পাঠক মহলে ব্যাপক গুঞ্জন চলছে।

ইবির বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান নিজের নামে প্রকাশিত বইটির স্বত্তাধিকারী তিনি নন বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন। বলেছেন এটা আমারও জানবার কৌতুহল। কারা এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস কর্নারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শনিবার তিনি দাবি করেন, ‘কোনো কুচক্রীমহল প্রকাশকের সঙ্গে যোগসাজশে আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করতে বইটি প্রকাশ করেছে। বিষয়টি আমার নজরে আসার পরে আমি ঝিনাইদহ কোর্টে প্রকাশকের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছি।’ আমি এই কাজের সঙ্গে জড়িত নই।

গত অক্টোবর মাসের শেষের দিকে ড. মনজুর রহমানের নামে ‘দ্যা গ্রেট মিথোলজি’ নামের একটি বই ঢাকার সৃজনী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়। চলতি মাসের শুরুতে ভারতের একটি বই মেলায় বইটি প্রদর্শিত হলে অভিক সরকার নামের এক ভারতীয় সুধাংশু রঞ্জন ঘোষের ‘গ্রীক পুরান কথা’ নামের একটি বইয়ের সঙ্গে ওই বইয়ের কিছু অংশের হুবহু মিল খুঁজে পান। পরে তিনি ফেসবুকে এ নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিলে বিষয়টি ভাইরাল হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দার ঝড় উঠলে ইবির বাংলা বিভাগের ওই শিক্ষক ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে জানান, ওই বই প্রকাশের সঙ্গে তার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। পরে গত ১৪ নভেম্বর তিনি ঝিনাইদহ সদরের সহকারী জজ আদালতে প্রকাশকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি রয়েছে তদন্তাধীন।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ড. মনজুর জানান, ঢাকার সৃজনী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ‘দ্য গ্রেট মিথোলজি’ পুস্তকের লেখকের নামের জায়গায় আমার নাম ব্যবহার করা হয়। কিন্তু এই বইয়ের লেখক কোনোদিনই আমি ছিলাম না বা বইটি আমি লিখিনি।

আর অন্য কারোর বই ষড়যন্ত্র করে আমার নামে চালিয়ে দেয়ায় ঝিনাইদহ সহকারী জজ আদালতে মামলা করেছি। এতে সৃজনী প্রকাশনীর প্রকাশক মো. মশিউর রহমানকে বিবাদী করা হয়েছে।

অধ্যাপক ড. মনজুর আরও বলেন, এই বিষয়ে আমি তাদের কাছে কোনো পাণ্ডুলিপি জমা দেয়নি। কে বা কারা আমার নাম ব্যবহার করে প্রকাশকের সঙ্গে যোগসাজশে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বইটি প্রকাশ করেছে।

চলতি মাসে কলকাতায় একটি বই মেলায় এই বইটি প্রকাশিত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার বিষয়ে দেশে-বিদেশে সমালোচনা শুরু হয়। এতে আমার যথেষ্ট সুনাম ক্ষুণ্ন হয়েছে।

সৃজনী প্রকাশনীর প্রকাশক মশিউর রহমান এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান, লেখকের নামের বিষয়টি ভুলবশত হয়েছে। বইটির প্রকাশের সময় আমি ভারতে ছিলাম। আমার ম্যানেজার ভুলবশত বইটির লেখকের জায়গায় অধ্যাপক ড. মনজুরের নাম দিয়েছে।

তবে আমি দেশে এসে বইটির সমস্ত কপি ধ্বংস করে দিয়েছি। বর্তমানে কেউ বইটি খুঁজে পাবে না। তাছাড়া এ ঘটনার জন্য আমি ড. মনজুরের কাছে মুঠোফোনে দুঃখ প্রকাশ করেছি।

এ নিয়ে রীতিমত বিব্রত বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান।

ঢাকা, ১৬ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।