ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদকের আদালত অবমাননা, বহিষ্কারের দাবি


Published: 2019-10-30 20:46:10 BdST, Updated: 2019-11-16 03:54:18 BdST

ইবি লাইভঃ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের একটি অডিও ক্লিপ ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ফাঁসকৃত অডিওতে রাকিব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে এক ব্যক্তিকে টাকার বিনিময়ে হাইকোর্টের রায় কিনে আনার কথা বলেন।

২ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের অডিওটি মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে শাখা ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দেয়।

সম্পাদক রাকিবের বিরূদ্ধে আদালতের অবমাননার অভিযোগ এনে বুধবার (৩০ অক্টোবর) মানববন্ধন করেন আইন অনুষদভুক্ত তিন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বেলা সাড়ে এগারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে মানববন্ধন করে তারা। মানববন্ধনে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানান। পাশাপাশি তাকে আইনের আওতায় আনতে আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা জানায়, ‘রাকিব তার কথোপকথনের মধ্যে দিয়ে বিচার ব্যবস্থাকে অবমাননা করেছে। আদালতকে অবমাননা করা দন্ডনীয় অপরাধ। আমরা তাকে আইনের আওতায় আনতে মাননীয় আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি এবং তাকে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানাচ্ছি।

এর আগে এই অভিযোগে মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) রাত সাড়ে আটটার দিকে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে শাখা ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের নেতা-কর্মীরা।

ফাঁসকৃত অডিও সূত্রে জানা যায়, সম্পাদক রাকিব অজ্ঞাত ব্যক্তির সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগ, আইন বিভাগ ও গণিত বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ প্রসঙ্গে কথা বলেন।

মানববন্ধন

 

কথোপকথনে অজ্ঞাত ব্যক্তি বলেন, ‘ফিন্যান্সে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছেলে আবেদন করেছে। আইন বিভাগে একটা সার্কুলার হয়ে রয়েছে। আর গণিত বিভাগের সাইফুলের স্ত্রীর ব্যাপারটা কনফার্ম করতে হবে।

এসময় রাকিব অডিওতে বলেন, "সে ব্যাপারটা হবে। কিন্তু মেলা টাকা লাগবে। হাইকোর্টে একটা রীট করতে হবে। করে রায় কিনে আনতে হবে। হাইকোর্টের এমন এমন জায়গায় এমন এমন লাইন। আপনি যেভাবে চাবেন সেভাবে রায় দিবে। শুধু টাকা লাগবে। এসব পথ আমি পাাড়ি দিয়া আইছিতো (আসছি)। রায় টাই সব কেনা যাবে, সব কেনা যাবে।"

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি এখনো এমন কোন অডিও বা কথোপকথন শুনেনি। এমন কোন কথাও কারো সাথে আমার হয়নি।’

প্রসঙ্গত, এর আগেও বিশ্ববিদ্যালয়ের ড্রাইভার নিয়োগ বাণিজ্য নিয়ে ১ মিনিট ১৫ সেকেন্ডের ও ৪০ লাখ টাকার বিনিময়ে নেতা হয়ে আসা নিয়ে ৪ মিনিট ৫৮ সেকেন্ডের দুটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়।

অডিও প্রকাশ হওয়ার পর শাখা ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের নেতাকর্মীরা তাকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। এরপর তাকে দলীয় কাজে ক্যাম্পাসে আসতে দেখা যায়নি। একাডেমিক কাজে কয়েকবার আসলেও ধাওয়া দিয়ে ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করেছে নেতাকর্মীরা।

ঢাকা, ৩০ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।