একইদিনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর গলায় ফাঁস, ছাত্রের বিষপান!


Published: 2018-12-03 01:45:20 BdST, Updated: 2018-12-13 06:06:14 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী একই দিনে আত্মহত্যার ভয়ংকর পথে হেঁটেছেন। এদের মধ্যে একজন বিষপান করে অন্যজন গলায় দড়ি দিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। বৃহস্পতিবার তারা এমন ভয়ংকর কাণ্ড ঘটিয়েছেন। তবে তাদের মধ্যে গলায় দড়ি দেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ঐশী বৃহস্পতিবারই মারা গেছেন। আর বিষপান করা ছাত্র আজিমুদ্দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন শনিবার।

আজিমুদ্দিনের দাদা আব্দুল মালেক জানান, চাকরি না পেয়ে হতাশায় ভুগতে থাকেন আজিমুদ্দীন। এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার তিনি বিষপান করেন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে শনিবার আজিমুদ্দিন মারা যায়। তিনি আরও জানান, আল-কোরআন থেকে অনার্স মাষ্টার্স পাস করার পর আজিমুদ্দিন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের দপ্তরসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির আবেদন করেন। কিন্তু কোন জায়গায় টাকা ছাড়া তার চাকরি হয়নি।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহিউদ্দীন জানান, শুনেছি চাকরি না পেয়ে আজিমুদ্দিন আত্মহত্যা করেছে। ছেলেটি খুব নম্র ভদ্র হিসেবে এলাকায় পরিচিত। বেশে কিছুদিন তিনি পঞ্চগ্রাম জামে মসজিদে তিনি ইমামতিও করেছেন বলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহিউদ্দীন উল্লেখ করেন।

তবে প্রতিবেশীরা জানান, পাবনার একটি মেয়ের সাথে তার সম্পর্ক ছিল। দুই বছর আগে মেয়েটির বিয়ে হয়ে যায়। গত বৃহস্পতিবার মেয়েটি আজিমুদ্দিনের সাথে দেখা করে তার কাছে ফিরে আসার প্রস্তাব দেয়। কিন্তু চাকরি না থাকায় টেনশনে পড়ে যায় আজিমুদ্দিন। একদিকে প্রেম অন্যদিকে প্রেমের টেনশনের কারণে ভয়ংকর পথ বেছে নিয়েছেন তিনি।

এদিকে বয়ফ্রেন্ডের জন্য প্রাণ দিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতিক বিভাগের ছাত্রী ঐশী। গলায় রশি দিয়ে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। এব্যাপারে থানায় ইউডি মামলা হয়েছে যদিও লাশের ময়না তদন্ত করানো হয়নি। ঐশী শৈলকুপা উপজেলার সোনদহ গ্রামের আলাউদ্দিন মহুরীর মেয়ে।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে নিজ বাড়িতে গলায় রশি দেন তিনি। বেলা ১২ টার দিকে শৈলকূপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এসব তথ্য জানান শৈলকুপা থানার এস,আই মাহফুজুর রহমান ।

তিনি আরো বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়ে বাড়ি ফিরেই নিজ ঘরে রশি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ঐশী। পরে শৈলকুপা হাসপাতালে নেওয়া হলে ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে মতবিরোধ ও পরিবারের সদস্যরা তাদের সম্পর্ক মেনে না নেয়ায় ঐশী এমন ভয়ংকর পথ বেছে নিয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঢাকা, ০৩ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।