দাবি মেনে নেওয়ায় যবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন স্থগিত


Published: 2018-09-19 17:30:32 BdST, Updated: 2018-10-16 01:51:36 BdST

যবিপ্রবি লাইভ: দশ দফা দাবিতে গত সোমবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে করেন। টানা দুইদিন সকল প্রকার ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীরা।

পরে এক পর্যায়ে আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধি দল শিক্ষকদের সাথে বৈঠকে তাদের দাবিগুলো তুলে ধরে। শিক্ষকরা তাদের দাবিগুলো মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেন। তার পরেই শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন স্থগিত করে। বুধবার থেকে পুরোপুরি ক্লাস শুরু হয়।

শিক্ষার্থীদের দশ দফা দাবিগুলো হচ্ছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন ইয়ার ড্রপ থাকবে না। প্রতি কোর্সের রিটেক ফি ২০০০ টাকা করে, যদি রেগুলার সেমিস্টারে দেওয়া হয়, এই সিস্টেম বাতিল করে রিটেক ফি কমিয়ে আনতে হবে। প্রতি কোর্সের রিটেক ফি ৫০০০ টাকা করে, যদি স্পেশাল সেমিস্টারে দেওয়া হয়। এই সিস্টেম বাতিল করতে হবে। যদি রেগুলার সেমিস্টারের একমাসের মধ্যে কোন শিক্ষার্থী স্পেশাল সেমিস্টার করে রিটেক পরীক্ষা দিতে চায় তবে কোর্স প্রতি ১০০০০ টাকা করে দিতে হবে। এই প্রক্রিয়া বাতিল করতে হবে।

ল্যাব অথবা ব্যবহারিক পরীক্ষায় রিটেকের জন্য প্রতি কোর্সে ১০০০০ টাকা নেওয়া হয় সেটা বন্ধ করতে হবে। ক্লাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ উপস্থিতি না থাকলে জরিমানা করতে হবে কিন্ত সেই জরিমানা পূর্বে নির্ধারিত জরিমানার মত হবে না ,সেটাকে ছাত্রবান্ধব করতে হবে । শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাশ প্রদত্ত রুটিন অনুযায়ী নিতে হবে। রিটেকের ক্ষেত্রে আউট অফ ৪.০০ এর মধ্যে আউট অফ ৩.৭৫ কাউন্ট করতে হবে। পরিবহন সংকট খুব দ্রুত নিরসন করতে হবে।

জানা গেছে, ভিসির এর অনুপস্থিতিতে বিভিন্ন অনুষদের ডীনেরা শিক্ষার্থীদের সাথে এ বৈঠকে অংশ গ্রহণ করেন। শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো পর্যালোচনা করে যে দাবিগুলো যৌক্তিক বলে মনে করেন এবং যেগুলা অযাচিত বলে মনে হয় সেগুলাকে প্রত্যাখ্যান করে শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে দেন। ভিসির সাথে কথা বলে এবিষয়ে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে আশ্বাস দেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ড. কিশোর মজুমদার, ফলিত বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ড. মো: ওমর ফারুক, বিজ্ঞান অনুষদের ডীন ড. মো: আনিসুর রহমান, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. শেখ মিজানুর রহমান, ব্যবসায় বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মো: জিয়াউল আমিন, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মো: জাফিরউল ইসলাম ও ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড মো: মীর মোশারফ হোসেন।

শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস, প্রচার সম্পাদক হাসান মাহমুদ নূর, শমর হল ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সোহেল রানা, শমর হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ উদ্দীন, পিইএসএস বিভাগ ছাত্রলীগ সভাপতি আসিফ আল মাহমুদ সহ প্রত্যক বিভাগের ছাত্র প্রতিনিধি সহ প্রিন্ট ও অনলাইন বিভিন্ন গনমাধ্যমকর্মী।

শিক্ষকদের সাথে বৈঠক শেষে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস শিক্ষার্থীদের জানান, শিক্ষকরা আমাদের সব যৌক্তিক দাবিগুলো শুনেছেন এবং পর্যালোচনা করেছেন। ভিসি স্যার কাম্পাসে ফিরে এলে শিক্ষকরা আমাদের সব দাবিগুলো স্যারের কাছে তুলে ধরবেন।

 


ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।