কঠোর নিরাপত্তায় ইবি, সমাবর্তনে উপেক্ষিত গ্র্যাজুয়েটরা


Published: 2017-12-27 18:54:36 BdST, Updated: 2018-09-24 12:32:04 BdST


ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) চতুর্থ সমাবর্তন দীর্ঘ ১৫ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে এ সমাবর্তন অনুষ্ঠান। সমাবর্তনে উপস্থিত থাকবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো: আব্দুল হামিদ। সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে পুরো ক্যাম্পাস।

সমাবর্তন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে সম্পন্ন করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ইতোমধ্যে আইন শৃংঙ্খলা ও নিরাপত্তা উপ-কমিটি গঠন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুর রহমানকে আহবায়ক করে প্রক্টরিয়াল বডির সকল সদস্যসহ মোট ১৮ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে সার্বিক নিরাপত্তা দিতে এরই মধ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন বলে জানা গেছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আসন্ন সমাবর্তনে বিভিন্ন অনুষদে প্রথম স্থান অধিকারী স্নাতক পাস গ্র্যাজুয়েটরা স্বর্ণপদক থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথা অনুযায়ী শুধুমাত্র স্নাতকোত্তরে বিভিন্ন অনুষদে প্রথম স্থান অধিকারী ৭৩ জন পোস্ট গ্র্যাজুয়েটকে স্বর্ণপদক বা প্রেসিডেন্সিয়াল পদক প্রদান করা হবে।

প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে পদক বঞ্চিত গ্র্যাজুয়েটরা বুধবার বিকেল ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস কর্নারে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তাদের দাবি-পদক সংক্রান্ত উপ-কমিটি কর্তৃক গৃহীত পদক প্রদান সংক্রান্ত নীতিমালা পুনর্বিবেচনা করে স্নাতক পর্যায়ের ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে মেধাবী শিক্ষর্থীদের পদক তালিকায় অন্তর্ভুক্তকরণ এবং অনতিবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে সম্ভাব্য পদকপ্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ কারা হোক।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে স্নাতকে প্রথম স্থান অধিকারী সাবেক শিক্ষার্থী ও বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মিফতাহুল হাসান সান।

তিনি বলেন, ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, রাজশাহী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়সহ বাংলাদেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে গ্র্যাজুয়েটদের (স্নাতক ফ্যাকাল্টি ফার্স্ট) স্বর্ণপদক ও সনদ প্রদান করা হয়।

পাশাপাশি কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে গ্র্যাজুয়েটদের সঙ্গে পোস্ট গ্র্যাজুয়েটদেরও পদক ও সনদ দেয়া হয়। তবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিন্ন চিত্র। সমাবর্তনে গ্র্যাজুয়েটদের উপক্ষো করে শুধুমাত্র পোস্ট গ্র্যাজুয়েটদেরকেই প্রেসিডেন্সিয়াল পদক বা স্বর্ণ পদক ও সনদ দেয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সব বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তনে প্রত্যেক অনুষদের স্নাতক পর্যায়ের একজন মেধাবী শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বর্ণপদক দেয়া হয়। তবে এই প্রথম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তনে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। যা মোটেও কাম্য নয়। এর ফলে মেধাবীরা নিরুৎসাহিত হরে।

গতকাল মঙ্গলবার একই দাবিতে পদক বঞ্চিত গ্র্যাজুয়েটরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর হারুন উর রশিদ আসকারী এবং প্রো-ভিসি প্রফেসর শাহিনুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথা, সময় স্বল্পতা এবং ফান্ডের শোচনীয় অবস্থার দোহাই দিয়েছেন।

এ বিষয়ে সমাবর্তনে পদক প্রদান উপ-কমিটির আহ্বায়ক ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর এএইচএম আক্তারুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেওয়াজ অনুযায়ী স্টিয়ারিং কমিটির সিদ্ধান্তে এবারও শুধু পোস্ট গ্র্যাজুয়েটদের পদক ও সনদ দেয়া হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর হারুন উর রশিদ আসকারী বলেন, শুধু মাস্টার্সে ফ্যাকাল্টি ফার্স্ট হলে স্বর্ণপদক দেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথা। তবে আগে কেউ এমন দাবি করেনি। কিন্তু এবার তারা যখন দাবি করেছে তখন এ সংক্রান্ত কাজ শেষ দিকে তাই তাদের অন্তর্ভুক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল বডি সূত্রে জানা যায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চতুর্থ সমাবর্তন উপলক্ষে বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, প্রক্টরিয়াল বডি, আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর পোষাকধারী, সাদা পোষাকধারী ও গোয়েন্দা সংস্থা ব্যুরো কাজ করে যাচ্ছে।

এছাড়া ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে বিভিন্ন স্থানে বসানো হচ্ছে হাই পাওয়ারের সিসি ক্যামেরা। সমাবর্তনের এক দু’দিন আগে থেকেই রাষ্ট্রপতির বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী (এসএসএফ) কাজ করবে বলে জানা গেছে।

সমাবর্তন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে ক্যাম্পাসে উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে। ক্যাম্পাসে যেকোন ধরনের অপ্রিতিকর ঘটনা এড়াতে সার্বক্ষনিক নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সমাবর্তন শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিরাপত্তা জোরদার থাকবে।

 

ঢাকা, ২৭ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

 

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।