ইবিতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ: শিক্ষার্থীকে মারধর


Published: 2017-12-19 21:34:15 BdST, Updated: 2018-04-25 04:40:09 BdST

ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের জেরে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সোহেল রানা নামের এক শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি লোক প্রশাসন বিভাগের ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র ও ঝিনাইদহ জেলার কোর্টচাদপুর উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমানের ছেলে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে লালন শাহ আবাসিক হলের ৩৩৫ নম্বর কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। ওই রাতে বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী আসাদুজ্জমান আসাদ লালন শাহ হলে সোহেল রানাকে ডেকে নিয়ে যান। পরে কিছু নেতাকর্মীরা কক্ষের দরজা বন্ধ করে তাকে মারধর করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই ঘটনার জের ধরে আজ মঙ্গলবার আইন বিভাগের সুমন সমর্থিত ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মীরা লালন হলে অবস্থান নিয়ে সভাপতি সমর্থিত নেতাকর্মীদের খোঁজাখোজি করেন বলে জানা গেছে।

সোহেল রানা বলেন, ‌‘আমি ছাত্রলীগের সেক্রেটারি ও সুমনকে সমর্থিন করি বলে আমাকে রাতে মারধর করেছে। পরে সকালে আমার বিছানা পত্র ফেলে দেয়। আমি প্রক্টরিয়াল বডিকে জানিয়েছি, কিন্তু উপযুক্ত কোনো প্রতিকার পাইনি। আগামীকাল বুধবার থেকে আমার ফাইনাল পরীক্ষা। আমি এই ঘটনার বিচার চাই।’

ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শাহিনুর রহমান বলেন,‘সামন্য ঘটনার জের ধরে আজ সুমন সমর্থিত কিছু কর্মীরা লালন শাহ হলে পরিস্থিতিকে উসকিয়ে দিতে এসেছিলেন। পরবর্তী তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে।’

প্রক্টর বলেন প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান বলেন,‘বিষয়টি আমাকে লিখিতভাবে কেউ অভিযোগ করেনি। আমি অন্য মাধ্যমে ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি যেহেতু আবাসিক হলের সঙ্গে জড়িত তাই প্রভোস্টের সাথে কথা বলার পর প্রক্টরিয়াল বডিকে পাঠানো হয়েছে।’

 

ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।