অমিতাভ ব্রাজিল ও চঞ্চল চৌধুরী আর্জেন্টিনার সমর্থক


Published: 2018-05-27 16:03:20 BdST, Updated: 2019-08-23 11:32:34 BdST

সাইমুম সাদ: ‘আয়নাবাজি’ মুগ্ধ করেছে দর্শকদের। কিন্তু ওই আয়নাবাজির দুই সেলিব্রেটি এখন দুই মেরুতে। তারা আর একস্থানে নেই। এযেন আকাশ পাতাল দুরত্বের অবস্থান। নির্মাতা অমিতাভ রেজা ও অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী এখন এক অপরের প্রতিদন্দ্বি। ফুটবল বিশ্বকাপকে ঘিরে এবার দু’জন দুই পথে। অমিতাভ রেজা ব্রাজিল ও চঞ্চল চৌধুরী আর্জেন্টিনার দলের সমর্থক। রোববার সন্ধ্যায় নিজের পছন্দের দল নিয়ে গ্লিটজের মুখোমুখি হলেন তারা।

গ্লিটজ: বিশ্বকাপে প্রিয় দলের কাছে প্রত্যাশা কী?

অমিতাভ রেজা: কোনো প্রত্যাশা নেই। ব্রাজিলই এবার চ্যাম্পিয়ন হবে।

চঞ্চল চৌধুরী: আমি আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করি। শ্যুটিংয়ের জন্য এখনও খেলার সঙ্গে পুরোপুরি ইনভলব হতে পারিনি। আশা করছি, আর্জেন্টিনা অবশ্যেই ভালো করবে।

গ্লিটজ: ব্রাজিল কেন?

অমিতাভ রেজা: ফুটবল তো আসলে ব্রাজিলই খেলে। আর কেউ খেলে নাকি?

গ্লিটজ: প্রিয় খেলোয়াড়?

অমিতাভ রেজা: মেসি।

চঞ্চল চৌধুরী: মেসি।

গ্লিটজ: মেসিই কেন?

অমিতাভ রেজা: মেসির চেয়ে ভালো পৃথিবীতে কোনো খেলোয়াড় নেই। মেসি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট খেলোয়াড়।

চঞ্চল চৌধুরী: মেসি সুন্দর খেলে। তাদের পায়ে জাদু আছে। খেলা হচ্ছে একটা শিল্প। সেই জায়গা থেকে যার পারফরমেন্সটা ভালো লাগবে তাকেই তো পছন্দ করব। সেইজন্যই মেসিকে ভালো লাগে।

গ্লিটজ: আপনি ব্রাজিলের সমর্থক কিন্তু প্রিয় খেলোয়াড় আর্জেন্টিনা দলের।

অমিতাভ রেজা: এটার সঙ্গে জাতীয়তাবাদের সম্পর্ক নেই।

গ্লিটজ: ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে আপনি বলেছেন, আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা খেলা বোঝেন না। বিষয়টি একটু ব্যাখ্যা করবেন?

অমিতাভ রেজা: খেলা একটি পারফর্মিং আর্ট। এটা খেলা-ই মাত্র। এটার সঙ্গে জাতীয়তাবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। এটা শুধুমাত্র বিনোদন। ওটা আসলে ফান ছিল।

গ্লিটজ: বিশ্বকাপ শুরুর আগেই ফেইসবুকে দু’দলের সমর্থকরা কাদা ছোঁড়াছুঁড়িতে মেতেছে। তাদের জন্য কী পরামর্শ দেবেন?

অমিতাভ রেজা: খেলাটাকে ফান হিসেবেই নেওয়া উচিত। বাংলাদেশের মানুষ খুব আবেগী। কেউ করলে করুক। বাংলাদেশের মানুষের আনন্দ করার তো কিছু নেই।

চঞ্চল চৌধুরী: খেলার মধ্যে উত্তেজনা থাকবে-এটা স্বাভাবিক। ক্রিকেট হলে আরও বেশি উত্তেজনা থাকত। তবে সেই উত্তেজনা যেন এমন পর্যায়ে না হয় যেন সেটা ধ্বংসাত্মক পর্যায়ে চলে যায়। অবশ্যই আমার ভক্তদের বলব, একটা লিমিট যেন সবাই বজায় রাখেন।

ঘটনা হলো, আমরা যে দুইটা দেশটা সমর্থন করছি, যেইসব খেলোয়াড়কে সমর্থন করছি তারা আমাদের দেশের নাম জানে কিনা সন্দেহ। আমরা এখানে দলাদলি করছি।

খেলাধুলা তো বিনোদন। কেউ যেন কাউকে গালি না দেয়। প্রতিটা মানুষের আদর্শিক জায়গা থাকবে। একটি দলই যে সবার প্রিয় বিষয়টি এরকম না।

কার্টেসি: সাইমুম সাদ

 

ঢাকা, ২৭ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।