শিক্ষার্থীদের দাবি: মুসলিম যজ্ঞ চালিয়েছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ


Published: 2020-01-23 03:02:46 BdST, Updated: 2020-02-23 12:44:41 BdST

লাইভ ডেস্ক: ভারতের উত্তর প্রদেশের পুলিশের বিরুদ্ধে গরিব মুসলিমদেরকে নির্বিচারে হত্যা করার অভিযোগ করেছে দেশটির প্রায় ৩০টি শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। তারা এসব দাবী নিয়ে মাঠে নেমেছেন।

জানা গেছে গত সপ্তাহে উত্তর প্রদেশের ১৫টি শহর ও এলাকা ঘুরে তৈরি করা রিপোর্ট তারা বুধবার দিল্লিতে প্রকাশ করেন। রাজ্যটিতে নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ) বিরোধী প্রতিবাদ ও বিক্ষোভে অন্তত ২৩ জন নিহত হয়েছেন বলেও দাবী তাদের ।

শিক্ষার্থীরা জানান, পুলিশ ইচ্ছাকৃতভাবে গরিব মুসলিমদের ওপর গুলি চালায়। এখনও ব্যাপক ধরপাকড় চলছে, মানুষ আতঙ্কিত। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ গত ১৯ ডিসেম্বর সিএএ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর প্রতিশোধ নেয়ার কথা ঘোষণা করেন।

এর পরের দিন থেকেই এই রাজ্যের পুলিশ বেছে বেছে মুসলিমদের ওপর হামলা চালাতে শুরু করে বলে দাবি রাজ্যটিতে সরেজমিনে তদন্ত করতে যাওয়া শিক্ষার্থীদের।

উত্তর প্রদেশের মীরাট, মুজাফফরপুর ও আলিগড়ে তদন্ত করতে যাওয়া দলটির সদস্য এবং দিল্লি ইউনিভার্সিটির ছাত্রী থৃতি দাস বলেন, আমরা চারটি দলে ভাগ হয়ে ১৫টি জায়গায় গিয়েছি।

থৃতি দাস বলেন, আমরা মুসলিমদের ওপর চালানো হামলাগুলোতে একটা কমন প্যাটার্ন লক্ষ্য করেছি। প্রায় প্রতিটা হামলা ২০ ডিসেম্বর অর্থাৎ মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরদিন বিকেল তিনটা থেকে চারটার মধ্যে হয়।

রাজ্যটির বিজনৌর ও কানপুরে তদন্ত করতে যাওয়া দলটির সদস্য এবং দিল্লির ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যাস কমিউনিকেশনের ছাত্র আকাশ মিশ্রা বলেন, গুলিবিদ্ধদের পেটে বা মাথায় বা বুকে গুলি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সব জায়গাতেই পুলিশের সঙ্গে যোগ দেয় স্থানীয় বিজেপি বা সঙ্ঘ পরিবারের লোকজন। এমন ভয় দেখানো হয়েছে যে আহতরা সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যাচ্ছেন না। তারা প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।