কাশ্মীরে সরকারি দপ্তর খুলছে, ফিরছে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ


Published: 2019-08-09 15:14:03 BdST, Updated: 2019-08-23 02:56:56 BdST

ইন্টারন্যাশনাল লাইভ: ভারতর সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫-ক অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়ায় জম্মু-কাশ্মীরসহ বিশ্বজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়। গত কয়েক দিন আগে ভারত সরকার হিমালয়ের ওই উপত্যকা অঞ্চলে জারি করে ১৪৪ ধারা। শুক্রবার থেকেই কাশ্মীর উপত্যকার সরকারি দপ্তরগুলো খুলছে। জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক বিবৃতি জারি করে শ্রীনগরে প্রশাসনিক স্তরের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাজে যোগদানের জন্য রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার থেকেই বদলে যেতে শুরু হয় শান্তিপূর্ণ পরিবেশ। পাল্টে যেতে থাকে ভূস্বর্গ-খ্যাত কাশ্মীর উপত্যকার চেহারা। এখন থেকে জম্মু ও কাশ্মীরে চালু হচ্ছে সরকারি দপ্তর। উপত্যকার সাম্বা সেক্টরের সব স্কুল খুলছে। এছাড়াও জানা গেছে তবে শুক্র ও শনিবার বন্ধ থাকবে জম্মু বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম।

ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানান, জম্মু-কাশ্মীরে ভোট হবে। সেখানকার মানুষ বিধায়ক-মুখ্যমন্ত্রী পাবেন। ঈদে বাড়ি ফেরার সুযোগ পাবেন প্রবাসী কাশ্মীরিরা। উপত্যকায় হবে উন্নয়ন, আসবে বিনিয়োগ। এ ছাড়া রাজ্যের মর্যাদাও আবার ফিরে পাবে জম্মু-কাশ্মীর।

নরেন্দ্র মোদি তাঁর ভাষণে আশ্বাস দেন, আগামী সোমবার ঈদের সময়ে কাশ্মীরের বাইরে থাকা মানুষ ঘরে ফিরতে পারবেন। সরকার তাঁদের সব রকম সাহায্য করবে। কাশ্মীরের পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলেও আশ্বাস দেন মোদি।


ঢাকা, ০৯ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।