মালয়েশিয়ার নাজিবের ৪ সন্তানের একাউন্ট জব্দ


Published: 2018-07-07 20:05:12 BdST, Updated: 2018-09-22 12:05:36 BdST

লাইভ ডেস্ক: এবার মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সন্তানদের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। নাজিব রাজাকের মেয়ে নুরিয়ানা নাজওয়া নাজিব একদিন আগে অভিযোগ করেন যে, তার ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে।

তবে তার একদিন পরেই নাজিব রাজাকের অন্য তিন সন্তানও একই অভিযোগ করেছেন। মালয়েশিয়ার অনলাইন দ্য স্টার এ খবর দিয়েছে। উমনো পন্থি এনজিও পেমানতাউ মালয়েশিয়া বারু ( নিউ মালয়েশিয়া মনিটর)-এর সভাপতি লোকমান নূর আদম বলেছেন, তাকে জানানো হয়েছে যে, মালয়েশিয়ার দুর্নীতি বিরোধী কমিশন (এমএসিসি) সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সন্তান নুরিয়ানা নাজওয়া নাজিব।

মোহাম্মদ নোরাশ্বমান নাচিক, মোহাম্মদ নিজার নাজিব ও পুতেরি নূরলিসা নাজিবের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করেছে। ১ মালয়েশিয়ায় ডেভেলপমেন্ট বেরহাদ (১এমডিবি) দুর্নীতিতে নাজিব রাজাকের জদিত থাকার তদন্ত চলছে।

ওই অপরাধের সঙ্গে তিনি জড়িত থাকার অভিযোগে এসব একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে তিন দফা ফৌজদারি অপরাধ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের একটি অভিযোগ আনা হয়েছে।

তবে তার সন্তানদের একাউন্ট জব্দ করা নিয়ে লোকমান বলেছেন, এটা অমানবিক। এতে পরিস্থিতির অবনতি হবে। এমনিতেই পুতেরি নুরলিসা সুস্থ নন বলে তাকে জানানো হয়েছে। চিকিৎসার খরচ যোগাতে তার ব্যাংক একাউন্ট থেকে অর্থ তোলা প্রয়োজন।

বৃহস্পতিবার উতুসান মালয়েশিয়া রিপোর্ট করে যে, ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন মোহাম্মদ নিজার। তিনি যে জটিলতার মুখোমুখি তা নিয়ে কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, আমার ও বআমার অসুস্থ ভাইবোনের একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে।

এমন কি আমরা বিল পর্যন্ত দিতে পারছি না। বুধবার নাজিব রাজাককে অভিযুক্ত করা হয়। এর পরের দিনই তিনি এই পোস্ট দিয়েছেন। একই দিনে মালয়েশিয়াকিনি রিপোর্ট করেছে যে, মোহামম্মদ নুরাশ্বমানের একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। অ

ন্যদিকে দ্য থার্ড ফোর্স নামের একটি ব্লগ সাইট লিখেছে, পুতেরি নুরলিসার ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে তাৎক্ষনিকভাবে নাজিবের কোনো সহকারী বা আইনজীবীর মন্তব্য পাওয়া যায় নি।


ঢাকা, ০৭ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।