কি আছে ট্রাম্প-কিম স্বাক্ষরিত ডকুমেন্টে!


Published: 2018-06-12 20:02:21 BdST, Updated: 2018-06-24 22:19:41 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: সব শঙ্কা আর অনিশ্চয়তাকে উড়িয়ে দিয়ে অবশেষে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের সঙ্গে মুখোমুখি বৈঠকে বসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ৯ টায় সিঙ্গাপুরের সেন্টোসা দ্বীপে বৈঠক শুরু করেন দুই নেতা।

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের করমর্দন প্রত্যক্ষ করে পুরো বিশ্ব।

খবরে বলা হয়, বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তার বোন কিম ইয়ো জং রয়েছেন। আর যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ও হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব সারাহ স্যান্ডার্স অংশ নিয়েছেন।

বৈঠকের শুরুতেই হাত মেলন কিম ও ট্রাম্প। ১২ সেকেন্ড পরস্পরের হাত ধরে রেখে বিশ্বকে নতুন যুগের সূচনার ইঙ্গিত দেন তারা। বৈঠক কক্ষে প্রথমে প্রবেশ করেন কিম জং। তিনি সেখানে ট্রাম্পের জন্যে অপেক্ষা করেন।

পরে ট্রাম্প সেখানে প্রবেশ করলে তাকে স্বাগত জানান। উষ্ণ অভিবাদন জানান একে অপরকে। পরে একান্তে কথা বলেন দ্ইু নেতা। বৈঠক শুরুর আগে ট্রাম্প বলেন, এটা খুবই ভালো বৈঠক হবে। আর কিম বলেন, এ পরিস্থিতি তৈরি সহজ ছিলো না।

স্বাক্ষরিত ডকুমেন্টে কি আছে:

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন স্বাক্ষরিত ‘কমপ্রিহেনসিভ’ ডকুমেন্টে কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলকে পুরোপুরি পারমাণবিক অস্ত্রমুস্ত করার কথা বলা হয়েছে।

দু’নেতা এ লক্ষ্যে কাজ করতে সম্মত হয়েছেন। ওই ডকুমেন্টে বলা হয়েছে, তারা যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে একটি নতুন সম্পর্ক গড়তে কাজ করে যাবেন। স্বাক্ষরিত ডকুমেন্টে বলা হয়েছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও চেয়ারম্যান কিম জং উন ব্যাপক, ইনডেপথ ও আন্তরিক মতবিনিময় করেছেন যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে একটি নতুন সম্পর্ক গড়ার জন্য।

পাশাপাশি কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলে একটি টেকসই ও শান্তিপূর্ণ এলাকা গড়ে তোলার জন্য কাজ করবেন তারা। এক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়াকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

তাকে এ বিষয়ে নতুন করে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন চেয়ারম্যান কিম জং উন। একই সঙ্গে কোরিয়ান উপদ্বীপ অঞ্চলকে পুরোপুরি পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করার দৃঢ় প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

‘কম্প্রিহেন্সিভ ডকুমেন্টে’:

সিঙ্গাপুরে ঐতিহাসিক বৈঠকে একটি ‘কম্প্রিহেন্সিভ ডকুমেন্টে’ স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। তবে ওই চুক্তিপত্রের কি কি শর্ত ছিল বা কোন বিষয়ে দুই প্রেসিডেন্ট সমঝোতায় পৌঁছেছেন, তা বিস্তারিত জানা যায় নি।

তবে তারা উত্তেজনা প্রশমন ও পারমাণবিক নিরস্ত্রিকরণ বিষয়ে আলোচনা করেছেন। এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেছেন, আলোচনা নিয়ে উভয় পক্ষই অত্যন্ত সন্তুষ্ট। এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানোর কথা রয়েছে স্থানীয় সময় বিকাল আড়াইটায়।

মঙ্গলবার বৈঠকের ফাঁকে এক অনুষ্ঠানে দুই নেতা চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।
আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প এই চুক্তিকে ‘খুবই গুরুত্বপূর্ণ’ ও ‘ব্যাপক’ আখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেন, চুক্তিতে স্বাক্ষর করে তিনি ও কিম দু’জনেই সম্মানিত বোধ করছেন। আর কিম এটাকে ‘ঐতিহাসিক’ বলে মন্তব্য করেছেন।

 ‘কম্প্রিহেন্সিভ ডকুমেন্টে’ স্বাক্ষর করেছেন ডনাল্ড ট্রাম্প ও  কিম জং উন

 

তিনি বলেন, বিশ্ব একটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন প্রত্যক্ষ করবে। ধারণা করা হচ্ছে, কয়েক ঘন্টার মধ্যে ট্রাম্প ও কিম সংবাদ সম্মেলন করবেন। সেখানে চুক্তির বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন তিনি। এর আগে দুই দফা বৈঠক করেন ট্রাম্প ও কিম। প্রথম দফায় কিমের সঙ্গে একান্তে আধা ঘন্টারও বেশি সময় আলোচনা করেন।

এর পর সাংবাদিকদের সামনে হাজির হন। এতে ট্রাম্প বলেন, দারুণ বৈঠক হয়েছে। আমাদের অনেক অগ্রগতি হয়েছে। যে কারো প্রত্যাশার চেয়েও ভালো আলোচনা হয়েছে। এসময় ট্রাম্প জানান, দু’দেশ একটি চুক্তির দ্বারপ্রান্তে রয়েছে।এর পরেই দু’দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শুরু হয়। সেখানে একটি চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প ও কিম।

তবে এই চুক্তিপত্রের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায় নি। চুক্তির শর্ত বা সমঝোতার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে ট্রাম্প বলেন, আপনারা কিছুক্ষণের মধ্যেই জানতে পারবেন।

 

ঢাকা, ১২ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।