করোনা ভাইরাস: কথার লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া


Published: 2020-02-23 17:33:03 BdST, Updated: 2020-04-06 00:46:46 BdST

লাইভ ডেস্কঃ করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে শুরু হয়েছে কথার লড়াই। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলছেন, রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আছে এমন একাউন্ট থেকে দাবি জানানো হচ্ছে যে, করোনা ভাইরাস মহামারি ছড়িয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এমন ভুল তথ্য ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছে রাশিয়া।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের দাবি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার, ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম সহ বিভিন্ন মাধ্যমে হাজার হাজার প্রোফাইল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে শনিবার জবাব দিয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

তারা এমন অভিযোগকে ভুয়া বলে আখ্যায়িত করেছে। রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস-এর কাছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভ জানিয়েছেন, এটা হলো ইচ্ছাকৃত একটি মিথ্যা কাহিনী। এ সংবাদ জানিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

নতুন করোনা ভাইরাস সংক্রমণে মারা গেছেন কমপক্ষে ২৩৪৮ জন। এর বেশির ভাগই চীনে। আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৭৬ হাজার। কোথা থেকে এলো এই ভাইরাস, এর উৎস কি তা অনুসন্ধানে ব্যস্ত বিজ্ঞানীরা।

একই সঙ্গে এর টীকা আবিষ্কারের জন্য তাদের চেষ্টারও নেই কোন প্রকার ত্রুটি। এমন অবস্থায় এই ভাইরাসের উৎস সম্পর্কে ভুল তথ্য ছড়িয়ে দিচ্ছে রাশিয়ান কুৎসা রটানো কিছু মানুষ- এমন অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের।

তারা আরও বলছে, ষড়যন্ত্রমূলক তত্ত্ব, যা বেশ কয়েকটি ভাষায় অনলাইনে প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, নতুন করোনা ভাইরাস হলো চীনের বিরুদ্ধে (যুক্তরাষ্ট্রের) অর্থনৈতিক যুদ্ধ। ইউরোপ এবং ইউরেশিয়া বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ রিকার বলেছেন, করোনা ভাইরাস সম্পর্কে এভাবে মিথ্য কথা প্রচার করার মাধ্যমে রাশিয়ান কুৎসা রটানো কিছু মানুষ আরো একবার জনস্বাস্থ্যকে হুমকিতে ফেলা বেছে নিয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে তারা বৈশ্বিক স্বাস্থ্যসেবাকে বিঘ্নিত করছে। এই করোনা ভাইরাস মহামারিতে মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসকেও দায়ী করে পোস্ট দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, তিনিও এই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেয়ার সঙ্গে যুক্ত।

বার্তা সংস্থা এএফপির মতানুযায়ী, মধ্য জানুয়ারিতে ৩য় মৃত্যুর পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা রাশিয়ার এই ভুল তথ্য ছড়িয়ে দেয়ার বিষয়টি সনাক্ত করতে সক্ষম হয়। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গ্লোবাল এনগেজমেন্ট সেন্টারের প্রধান লিয়া গ্যাবিয়েলে জানিয়েছেন, এক্ষেত্রে আমরা দেখতে পেয়েছি, তারা সফলতার সঙ্গে রাষ্ট্রীয় টিভি, প্রক্সি ওয়েবসাইট, হাজার হাজার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে একই ভুল ধারণা ছড়াচ্ছে।

ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।